Categories
অর্থনীতি জাতীয়

রিজার্ভ ‍চুরি: জরিমানার ২০ মিলিয়ন ডলার চেয়েছে বাংলাদেশ

সংবাদ প্রতিদিন বিডি ডেস্কঃ বাংলাদেশ ব্যাংকের গচ্ছিত অর্থ চুরির ঘটনায় ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং কর্পোরেশনকে (আরসিবিসি) জরিমানা করা ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার চেয়েছে বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ও ফিলিপাইনের মধ্যে পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের সভায় (এফওসি) এই অর্থের দাবি করা হয়।

পররাষ্ট্র সচিব (এশিয়া প্যাসিফিক) মাসুদ বিন মোমেন জানিয়েছেন, এফওসিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির বিষয়ে ফিলিপাইনের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। রিজার্ভ চুরির ঘটনায় আমরা ফিলিপাইনের কাছে দোষীদের পরিচয় ও আর্থিক তথ্য জানতে চেয়েছি। আমরা বলেছি, কিছু টাকা আমাদের দেওয়া যেতে পারে। তবে ওদের যুক্তি অন্যরকম আছে। এ ছাড়া রিজার্ভ চুরির কিছু অর্থের হদিস এখনো বের করা যায়নি। তবে আমরা স্টেপ বাই স্টেপ এগোচ্ছি।

মাসুদ বিন মোমেন আরো বলেন, আরসিবিসিকে জরিমানা করা অর্থের বিষয়ে ওরা (ফিলিপাইন) বলেছে, আরসিবিসিকে ওদের আইন অনুযায়ী জরিমানা করেছে। তবে আমরা বলেছি, এই জরিমানা বাংলাদেশ ব্যাংকের কানেকশনে করা হয়েছে। সে কারণে এই অর্থ আমাদের দেওয়া যেতে পারে।

মঙ্গলবার সকালে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন মেঘনায় দুই দেশের মধ্যে এফওসি অনুষ্ঠিত হয়। এতে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন পররাষ্ট্র সচিব (এশিয়া প্যাসিফিক) মাসুদ বিন মোমেন। আর ফিলিপাইনের পক্ষে দেশটির সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তা মেনার্ডো এলভি মন্টিলেগরি নেতৃত্ব দেন।

২০১৫ সালে দুই দেশের মধ্যে এফওসি আয়োজনের জন্য একটি সমঝোতা সই হয়। সে অনুযায়ী, গতবছর ম্যানিলায় প্রথমবারের মতো এফওসি অনুষ্ঠিত হয়। এবার ঢাকায় দ্বিতীয় এফওসি অনুষ্ঠিত হলো।

Categories
জাতীয়

বাংলাদেশি ছাড়া কাউকে দেশের মাটিতে ঢুকতে দেয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ভারতের আসাম থেকে বাংলাদেশে পুশইনের খবরে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, কোনোভাবেই বাংলাদেশি ছাড়া কাউকে দেশের মাটিতে ঢুকতে দেয়া হবে না।

মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, যাদের পুশইন করা হচ্ছে তারা বাংলাদেশের নাগরিক কি না আমাদের সুনিশ্চিত হতে হবে। যদি বাংলাদেশের নাগরিক হয় তাহলে আমরা তাদের গ্রহণ করতে পারি। যদি তারা বাংলাদেশের নাগরিক না হয় তাহলে তাদেরকে কোনো ক্রমেই গ্রহণ করা হবে না।

তিনি বলেন, যাদের পুশইন করা হচ্ছে তাদের কেউ কেউ বাঙালি, তবে এরা বাংলাদেশি কি না সঠিকভাবে এখনো নিশ্চিত নই। বাঙালিদের ভেতরে ঢোকানোর চেষ্টা করেছেন। আমাদের বিজিবি কয়েক জায়গা থেকে এদেরকে ঢুকতে দেয়নি, অ্যালাউ করেনি। এদের সংখ্যা হাজার হাজার নয়, কয়েকশ’।

মন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গারা যারা ভারতে বিভিন্নভাবে ঢুকেছিল তারাও আসতে চেয়েছিল। কিন্তু সুনিশ্চিত না হয়ে কাউকে দেশে ঢুকতে দেয়া হবে না। আমাদের দেশের সুনিশ্চিত নাগরিক হলে কিভাবে গ্রহণ করা হবে সেটা দেখবো।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অনেকে বিভিন্ন সময় ভারতে যায়, ভিসার মেয়াদ শেষ হলে তাদের অনেক সময় পাঠিয়ে দেয়। এক্ষেত্রে ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে,কিন্তু আসতে দেরি হয়েছে এমন জটিলতার ক্ষেত্রে আমাদের নাগরিকদের অবশ্যই আমরা গ্রহণ করবো। তবে এতে আতঙ্কের কোনো কারণ নেই।

এভাবে পুশইনের চেষ্টা কোন উস্কানিমূলক নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, যদি হাজার হাজার বা শত শত হতো তাহলে আলোচনার বিষয় হতো। কিন্তু এখানে অল্প সংখ্যক মানুষ। তবে এ বিষয়ে ভারত এখন পর্যন্ত অফিসিয়ালি কোনো চিঠি দেয়নি। যারা আসতে চেষ্টা করছে তারা দেশের নাগরিক হলে গ্রহণ করতে আমরা প্রস্তুত।

ভারত থেকে জোর করে তাদের বাংলাদেশে পাঠানো হচ্ছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত অফিসিয়ালি ভারত কিছু জানায়নি। তাহলে জোর করে পাঠাচ্ছে কেন বলব। হয়ত কিছু পুশইন বেড়েছে, অস্বীকার করছি না। তবে কোনো ভারতীয় নাগরিক পুশইনের মাধ্যমে এখানে আসবে তা চিন্তাও করি না।

Categories
জাতীয়

নতুন সড়ক আইনে মামলা শুরু ।। songbadprotidinbd.com

রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় নতুন সড়ক আইনে মামলা দেয়া শুরু করেছে ট্রাফিক পুলিশ। শনিবার দুপুরের পর থেকে এ আইনে মামলা করা শুরু হয়েছে।

ট্রাফিক পুলিশ সূত্র জানায়, প্রথমদিনের মতো- যারা উল্টো পথে চলাচল করেছে এবং যাদের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই এমন মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকার ও পিকআপের ওপর নতুন সড়ক আইনে মামলা দেয়া হয়েছে।

সন্ধ্যায় রাজধানীর বিজয় সরণি চত্বরে দেখা যায়, উল্টো পথে চালানোর অপরাধে আমিনুল ইসলাম নামে এক মোটরসাইকেল চালককে নতুন আইনে পাঁচ হাজার টাকার মামলা দেয়া হয়।

শেরেবাংলা ট্রাফিক পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার আবুল হোসেন বলেন, দুপুরের পর থেকে নতুন আইনে মামলা শুরু করেছি। এখন পর্যন্ত ৯২ ধারায় চারটি মামলা করেছি। সবগুলোই মোটরসাইকেল। যারা উল্টো পথে আসছে তাদের ভিডিও করে রাখা হচ্ছে। আর এ ধরনের চেকপোস্ট এখন থেকে এভাবেই অব্যাহত থাকবে। রোববার থেকে আমাদের মামলার ধারাবাহিকতা আরো বাড়বে।

Categories
জাতীয়

‘স্থিতিশীল উন্নয়ন চাইলে জিডিপি বাড়াতে হবে’ ।। songbadprotidinbd.com

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেছেন, বর্তমানে দেশে ১৬ কোটির বেশি জনগণ থাকলেও কর দেয় মাত্র এক শতাংশ। এটি আমাদের জন্য গৌরবের বিষয় নয়। এশিয়ার মধ্যে আমাদেরই সবচেয়ে কম সংখ্যক মানুষ কর দেয়।

তিনি বলেন, সরকার চায় সবাই কর দিক। যদি আমরা স্থিতিশীল উন্নয়ন চাই তাহলে অবশ্যই কর জিডিপির অনুপাত বাড়াতে হবে। এজন্য করযোগ্য সবাইকে কর দিতে হবে।

শনিবার সকালে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সামনে আয়কর দিবসের কর্মসূচির উদ্বোধন করে তিনি এ কথা বলেন।

সঙ্গীতশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ বলেন, সঙ্গীতের লোকেরা কর দিতো না। এখন আমরা কর দিচ্ছি। কারণ যেদেশে বসবাস করছি, সেই দেশের উন্নতির জন্য আমাদের কর দিতে হবে। তাই নিজেরা কর দেয়ার পাশাপাশি সবাইকে কর দেয়ার জন্য উৎসাহিত করছি।

নাট্যকার বৃন্দাবন দাস বলেন, কর দেয়াটা আমাদের দায়িত্ব। এক টাকা দিয়ে আমরা অনেক সুবিধা ভোগ করি। তবে সৃজনশীল ও হয়রানিমুক্তভাবে কর আদায়ের জন্য এনবিআরকে আহ্বান জানাচ্ছি।

নাট্যকার ও অভিনেতা ড. ইমামুল হক বলেন, কর দেয়ার মানেই হল, দেশকে ভালোবাসা। দেশের উন্নয়নের জন্য আমরা কর দিয়ে থাকি। আসুন সবাই সরকারকে কর দেই।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন- চিত্রনায়ক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ সিদ্দিক, ওমর সানি, চিত্র নায়িকা মৌসুমী, পপি, চঞ্চল চৌধুরীসহ বিভিন্ন অভিনেতা অভিনেত্রীরা।

এরপর এনবিআরের সামনে থেকে ঘোড়ার গাড়িতে করে র‌্যালিতে অংশ নেন এনবিআর চেয়ারম্যান, অভিনেতা-অভিনেত্রী, নাট্য ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, সাহিত্যিকসহ সবাই। র‌্যালিটি এনবিআরের সামনে থেকে কাকরাইল, মৎস্য ভবন, প্রেসক্লাব, পল্টন হয়ে আাবার এনবিআরের সামনে এসে শেষ হয়।

উল্লেখ্য, এবারের জাতীয় আয়কর দিবস-২০১৯ এর স্লোগান ‘সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর’ একইসঙ্গে দিবসটির প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘কর প্রদানে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ, নিশ্চিত হোক রূপকল্প বাস্তবায়ন।’ রাজধানী ঢাকাসহ দেশের সব বিভাগীয় শহরেও জাতীয় আয়কর দিবসের বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে।