প্রাণঘাতী ক্যানসার ঘর বেঁধেছে দেহে, দোয়া চাইলেন সঞ্জয়

বিনোদন

বলিউড তারকা সঞ্জয় দত্তের ফুসফুসে ধরা পড়েছে প্রাণঘাতী ক্যানসার। শনিবার (৮ আগস্ট) হঠাত্‍‌ করে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা দেখা দিলে তাকে মুম্বাইয়ের লীলাবতী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) জানা যায়, ৬১ বছর বয়সী এই অভিনেতার ফুসফুসে ক্যানসার ধরা পড়েছে। সেদিন চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন স্টেজ থ্রি-তে ধরা পড়েছে এই অভিনেতার ক্যানসার। কিন্তু পরবর্তিতে চিকিৎসকরা জানান, তৃতীয় নয়, চতুর্থ পর্যায়ে রয়েছে তার ক্যানসার।

এদিকে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, চতুর্থ পর্যায়ের ফুসফুসের ক্যানসারের ক্ষেত্রে বাঁচার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। গত পাঁচ বছরের হিসেব দেখলে, মাত্র ১০ শতাংশ রোগীই এই পর্যায়ের ক্যানসারকে হার মানাতে পেরেছেন। ফুসফুসে ক্যানসারের কথা জানতে পেরেই তড়িঘড়ি চিকিৎসার জন্য আমেরিকার হাসপাতালে যাওয়ার কথা ভেবেছিলেন সঞ্জয় দত্ত। কিন্তু মুম্বাই হামলায় সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় তাকে আমেরিকার ভিসা দিতে রাজি হয়নি আমেরিকার দুতাবাস। তাই পরবর্তিতে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা করাতে যাওয়ার কথা ভেবেছিলেন সঞ্জয়। কিন্তু করোনার কারণে বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করানোও কঠিন হয়ে উঠেছে। তাই সেই সিদ্ধান্ত বাতিল করে আপাতত কোকিলাবেন হাসপাতালেই চিকিৎসা করাচ্ছেন তিনি।

মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) ভর্তি হলেন কোকিলাবেন হাসপাতালে। বোন প্রিয়াকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির সময় উৎকণ্ঠা-উদ্বিগ্ন মুখগুলো দেখে একটাই কথা বললেন সঞ্জয়, ‘আমার জন্য প্রার্থনা করুন।’ সঞ্জয় দত্তের স্ত্রী মান্যতা জানালেন, ‘এই মুহূর্তে চিকিৎসকদের এক বিশেষ টিমের তত্ত্বাবধানে কড়া নজরে রয়েছেন সঞ্জয়। তার শারীরিক পরিস্থিতি এবং করোনা আবহ, সবদিক মাথায় রেখেই বিদেশে চিকিৎসার কথা ভাবা হবে। হাত জোড় করে বলছি, দয়া করে এখন থেকেই সঞ্জয়ের শারীরিক পরিস্থিতি এবং ক্যানসার কোন পর্যায়ে পৌঁছেছে এসব নিয়ে গুজব ছড়াবেন না!’ প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার কোকিলাবেন হাসপাতালে যাওয়ার সময় সঙ্গে ছিলেন না স্ত্রী মান্যতা। যিনি লকডাউনে এতদিন দুবাইয়ে আটকে ছিলেন। কিন্তু সঞ্জয়ের ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ার খবর শুনেই ভারতে চলে এসেছিলেন। কিন্তু হোম কোয়ারেন্টাইন থাকায় সঞ্জয় দত্তের সঙ্গে হাসপাতালে যেতে পারেননি। তবে অভিনেতার সঙ্গে চিরাচরিতভাবেই ছায়াসঙ্গী হিসেবে রয়েছেন সঞ্জয়ের বোন প্রিয়া দত্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *