গোসলের পানিতে পাতাটি মেশালেই সর্দি-জ্বর ও সংক্রমণের ঝুঁকি কমবে!

প্রকাশিত: ৭:২৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৩, ২০২০

ঋতু বদলের এই সময় নানা সংক্রমণ রোগে আক্রান্ত হয় সবাই। জ্বর ঠাণ্ডা- কাশি লেগেই থাকে। তার মধ্যে করোনার ভয় যেন পেয়ে বসেছে সবাইকে। করোনার অন্যতম লক্ষণ সাধারণ ফ্লুয়ের মতো সর্দি জ্বর।

তবে এই সময় আপনার সবর্দি বা জ্বর হলেই করোনার ভয় পাবেন না। কারণ জ্বর ঠাণ্ডা- কাশি এই সময়ে খুবই স্বাভাবিক। তাছাড়া অনেক সময় কোনো রকম লক্ষণ ছাড়াই শরীরে থাবা  বসাচ্ছে করোনা। তবে সাবধানের মার নেই৷ যথাসম্ভব সুস্থ থাকা জরুরি। তাই আবহাওয়া পরিবর্তনের এই সময়টায় ফেরা যেতে পারে নিমপাতার কাছে। যুগ যুগ ধরে শরীরকে সুস্থ রাখতে নিমপাতা অপরিহার্য ভূমিকা পালন করেছে।

সংস্কৃততে নিমকে বলা হয় নিম্বা, যার অর্থ সুস্থ শরীর। ঋতুবদলের সময় নিমপাতা দেয়া পানি দিয়ে গোসল করুন।  জ্বর ঠাণ্ডা- কাশি বা সংক্রমক রোগ ছাড়াও ত্বকের ও চুলের সমস্যা, অ্যালার্জির প্রকোপ রুখতে নিমের জবাব নেই। আয়ুর্বেদ শাস্ত্রের অনেকখানি জুড়েই রয়েছে নিমের গুণগান। নিয়মিত নিমের রস খেতে পারেন। এতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, সাধারণ ফ্লু সারায়। কোভিড-১৯ রুখতে সবচেয়ে জরুরি হল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে ফেলা। তাই নিয়মিত নিম পাতা দেয়া পানিতে গোসল করুন। এটি প্রাকৃতিক জীবাণুনাশক।

কয়েকটা নিম পাতা পানিতে মিনিট পাঁচেক ফুটিয়ে নিন। ঠাণ্ডা করে গোসলের পানিতে মিশিয়ে নিতে পারেন। এতে ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়াসহ ত্বক ও চুলের সমস্যা দূর হবে। নিম অ্যান্টি ব্যাকট্রিয়াল, অ্যান্টি ফাঙ্গাল। খুশকি রুখতেও বিরাট ভূমিকা নেয় নিম। গরমকালে শরীরে যে র‍্যাশ বের হয়, তা দূর করতেও নিম কার্যকর। পিম্পল, ব্ল্যাকহেডসের সমস্যা সমাধানেও নিমের জবাব নেই। বেশি আর্দ্র আবহাওয়ায় থাকেন যারা, তাদের প্রাত্যহিক জীবনে নিম ব্যবহার করা উচিত। চোখের অ্যালার্জি সারাতেও কার্যকর নিম।

সূত্র:ইন্ডিয়ানএক্সপ্রেস