আজ ৫ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং

ভারী বর্ষণে ভারতে নিহত ১৩৪ জন

ভারতে মৌসুমি বৃষ্টিপাতের ফলে সৃষ্ট নানা দুর্ঘটনায় নিহতদের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। উত্তর প্রদেশ ও বিহার রাজ্যে মাত্র তিনদিনে মারা গেছে কমপক্ষে ১৩৪ জন। এছাড়া রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশে তুমুল বর্ষনে মারা গেছে ছয়জন। আর জম্মু-কাশ্মীরে মৃত্যু হয়েছে একজনের।

এদিকে একটানা বৃষ্টিপাতের কারণে রোববার হাঁটু পনির নিচে তলিয়ে গেছে বিহারের রাজধানী পাটনা।

বিহার রাজ্যের দুর্যাগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে গত ৭২ ঘণ্টায় এই রাজ্যে নিহত হয়েছেন ১২৭ জন। সেখানে মাত্র চব্বিশ ঘণ্টার বৃষ্টিপাতে মারা গেছে ২৩ জন। তারা পাটনা সংলগ্ন ভাগলপুর ও কাইমুর জেলার বাসিন্দা।

রোববার প্রচণ্ড বৃষ্টির ফলে হাঁটু পানির নিচে তলিয়ে গেছে বিহারের রাজধানী পাটনা। ফলে সেখানে বাতিল করা হয়েছে ২২টি ট্রেন।

স্থানীয় আবহাওয়া দপ্তর বলছে, আগামী ২৪ ঘণ্টা রাজ্যের কমপক্ষে ১৫টি জেলায় আরো বৃষ্টিপাতের সম্ভবনা রয়েছে। ফলে আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত বন্ধ করে দেয়া হয়েছে পাটনাসহ রাজ্যের বৃষ্টি কবলিত এলাকার স্কুলগুলো।

এ নিয়ে রোববার রাজ্যের দুর্যোগ ব্যবস্থাপণা কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার। এ অবস্থায় তিনি রাজ্যের বাসিন্দাদের ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানিয়েছেন।

এছাড়া গত চব্বিশ ঘণ্টায় উত্তর প্রদেশে মারা গেছে কমপক্ষে ২০ জন। এ নিয়ে গত তিন দিনে এই রাজ্যে নিহতের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো ৯৩ জনে।

এই রাজ্যের ফুড মেনেজম্যান্ট এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম সেন্টার (এফএমআইসিএস) জানায়, রাজ্যের গাজিপুর ও বাল্লিয়া জেলাগুলোতে গঙ্গা নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আর গনদা জেলায় বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে কুয়ানো নদী। এদিকে অব্যাহত বৃষ্টিপতের কারণে রাজ্যের ২৮টি জেলায় বন্যা সতর্কতা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

Comments are closed.

      আরও নিউজ

ফেসবুক পেইজ