Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / প্রচ্ছদ / মিতু হত্যায় ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি উদ্ধার

মিতু হত্যায় ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি উদ্ধার

  • ০৬-০৬-২০১৬
  • bike_13897
    চট্টগ্রাম, ০৬ জুন, : চট্টগ্রামে এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রীকে হত্যায় ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করার কথা জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। রবিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে শুলকবহর বড় গ্যারেজ এলাকা থেকে মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করা হয়।
    নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার (উত্তর) তাহমিনা তাকিয়া জানান, রবিবার গভীর রাতে পাঁচলাইশ থানার বাদুরতলা বড় গ্যারেজ এলাকায় ওই মোটরসাইকেল পাওয়া যায়।
    পাঁচলাইশ থানার ওসি (তদন্ত) মো. গিয়াস উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুলকবহর বড় গ্যারেজ এলাকা থেকে মোটরসাইকেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। মোটরসাইকেলটি নম্বর চট্টো মেট্রো-ল-১২-৯৮০৭। বর্তমানে মোটরসাইকেলটি চট্টগ্রামের ডিবি কার্যালয়ে রাখা হয়েছে।
    তবে বড় গ্যারেজ এলাকার কোথা থেকে, কোন অবস্থায় মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করা হয়েছে তা জানাতে পারেননি পুলিশের এ কর্মকর্তা।
    এর আগে গতকাল রাতে মাহমুদা আক্তার মিতুর হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে পাঁচলাইশ থানা একটি মামলা দায়ের হয়েছে। পাঁচলাইশ থানার এসআই ত্রিরতন বড়ুয়া বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।
    রবিবার সকাল ৭টার দিকে নগরীর জিইসি মোড়ে প্রকাশ্যে গুলি করে পুলিশ কর্মকর্তা বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতুকে হত্যা করে দৃর্বৃত্তরা। দুই ছেলে-মেয়েকে নিয়ে ক্যান্টনমেন্ট স্কুলে যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। অতি সম্প্রতি বাবুল আক্তারের পদোন্নতির পর ঢাকায় অবস্থান করলেও তার স্ত্রী ছেলে-মেয়েকে নিয়ে নগরীর জিইসি এলাকার একটি ফ্ল্যাটে থাকতেন।
    পিবিআই চট্টগ্রাম প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বশির আহমেদ খান জানান, সকাল ৬টা ৩৫ মিনিটের দিকে বাসা থেকে ১০০ গজ দূরে ছেলেকে নিয়ে ক্যান্টনমেন্ট স্কুলে যাওয়ার পথে তিনজন মোটরসাইকেল আরোহী বাবুল আক্তারের স্ত্রীকে প্রথমে ধাক্কা দেয়। এরপর তারা ছুরিকাঘাত করে পরপর তিন রাউন্ড গুলি ছুড়ে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে তিনটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। ছুরিকাঘাতের পাশাপাশি মাহমুদা আক্তারের মাথার বাম পাশ গুলিবিদ্ধ হওয়ায় তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

     

     

     

    (Visited 6 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *