Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / আন্তর্জাতিক / রাজ্য সরকারের কাছ থেকে স্রেফ একটি বন্দুকের লাইসেন্স জোগাড় করতে হিন্দু হলেন মুসলিম যুবক

রাজ্য সরকারের কাছ থেকে স্রেফ একটি বন্দুকের লাইসেন্স জোগাড় করতে হিন্দু হলেন মুসলিম যুবক

  • ২৩-০৪-২০১৬
  • ভারতে ধর্মান্তরিত হয়েছেন আরো এক মুসলিম যুবক। তবে তিনি কোনো ধর্মীয় ভাবাবেগ থেকে হিন্দু ধর্মে দীক্ষিত হননি। রাজ্য সরকারের কাছ থেকে স্রেফ একটি বন্দুকের লাইসেন্স জোগাড় করতেই নাকি তিনি ধর্ম বদলে ফেলেছেন বলে ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’ জানিয়েছে। একই কারণে এর আগেও দেশটিতে একাধিক মুসলিম যুবক হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন।

    সম্প্রতি আলোচিত এই ধর্মান্তরের ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশের বাঘপাত জেলায়। হিন্দু ধর্মে দীক্ষিত হওয়ার সময় ফুরকান আহমেদের মাথা ন্যাড়া করে দেয়া হয়। কপালে পরোনো হয়েছিল তিলক। ধর্মান্তরিত হওয়ার পর তার নতুন নাম হয়েছে ফুল সিং।

    পত্রিকাটি আরো জানায়, ফুরকান আহমেদ একটি বৈদ্যুতিক গাড়ির চালক। কিন্তু এই আয়ে ছয় সদস্যের পরিবারটির চলছিল না। তাই পাশাপাশি তিনি নিরাপত্তা রক্ষী হিসেবে কাজ করতে চেয়েছিলেন। এজন্য তার একটি আগ্নেয়াস্ত্র খুব দরকার হয়ে পড়েছিল। ২০১০ সালে তিনি একটি বন্দুকের লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেছিলেন। কিন্তু প্রশাসন তার আবেদনে সাড়া দেয়নি।

    নিজের তিক্ত অভিজ্ঞতা সম্পর্কে ফুরকান বলেছেন, ‘গত তিন বছর ধরে আমি বন্দুকের জন্য চেষ্টা করছি। এক বিভাগ থেকে অন্য বিভাগে ছুটোছুটি করেছি। প্রয়োজনীয় সমস্ত কাগজপত্রও জমা দিয়েছি। কিন্তু তারা আমার আবেদনে সাড়া দেয়নি। ২০১৪ সালে আমার কাগজপত্র হারিয়ে যাওয়ার পর আমি নতুন করে প্রক্রিয়া শুরু করেছি। কয়েক মাস আগে নতুন করে কাগজপত্র জমা দিয়েছি। কিন্তু এখনো লাইসেন্স হাতে পাইনি।’

    অথচ ওই সময়ের মধ্যে বাঘপাত জেলায় ৩৭৮টি অস্ত্রে লাইসেন্স ইস্যু করা হয়েছে। কেবল ফুরকানের বেলাতেই যত বায়না। বছরের পর বছর ধরে কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতে তার ফাইলে ধুলো জমেছে। এই হাতাশা থেকেই ধর্মান্তরিত হয়েছেন তিনি। ধর্ম বদল করার পরও যদি তিনি বন্দুকের লাইসেন্স না পান, তাহলে হাইকোর্টে যাবেন বলে জানিয়েছেন ফুরকান। তবে নিজের ধর্মান্তরিত হওয়ার বিষয়টি নিয়ে মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতাদের কোনো চাপ সহ্য করতে রাজি নন তিনি। সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, নিজের জীবনের ওপর অন্য কারো হস্তক্ষেপ সহ্য করবেন না তিনি।

    (Visited 15 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *