Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / অর্থ ও বাণিজ্য / রোজায় গরুর মাংস ৫২৫, খাসি ৭৫০ টাকা ।। songbadprotidinbd.com

রোজায় গরুর মাংস ৫২৫, খাসি ৭৫০ টাকা ।। songbadprotidinbd.com

  • ০৬-০৫-২০১৯
  • image-93623 (1)সংবাদ প্রতিদিন বিডি ডেস্কঃ  চলতি বছর রোজা উপলক্ষে রাজধানীর বাজারে মাংসের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। এবার গরুর মাংসের দাম প্রতিকেজি ৫২৫, মহিষের মাংস ৪৮০ টাকা, খাসির মাংস ৭৫০ টাকা এবং ভেড়ার মাংস ৬৫০ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

    নগরভবনে মাংস ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সোমবার দুপুরে বৈঠক শেষে মাংসের দাম নির্ধারণ করেন ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন।

    নির্ধারিত দাম অনুযায়ী, এবার রমজানে দেশি গরুর মাংস বিক্রি হবে প্রতি কেজি ৫২৫ টাকায়, যা গত বছর ছিল ৪৫০ টাকা। বিদেশি গরুর (বোল্ডার) মাংস বিক্রি করতে হবে প্রতি কেজি ৫০০ টাকায়, যা গত বছর ছিল ৪২০ টাকা। মহিষের মাংস বিক্রি করতে হবে প্রতি কেজি ৪৮০ টাকায়, যা গত বছর ছিল ৪২০ টাকা। খাসির মাংস বিক্রি করতে হবে প্রতি কেজি ৭৫০ টাকায়, যা গত বছর ছিল ৭২০ টাকা। ভেড়া বা ছাগীর মাংস নির্ধারণ করা হয়েছে প্রতি কেজি ৬৫০ টাকা, যা গত বছরও একই দামে ছিল।

    রমজানে সাধারণ মাংসের দোকানের পাশাপাশি বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টাল স্টোরেও সিটি করপোরেশনের নির্ধারিত দামে মাংস বিক্রি করতে হবে।

    বৈঠকে উপস্থিত মাংস ব্যবসায়ীদের সম্মিলিত সিদ্ধান্তেই এই দাম নির্ধারণ করা হয়েছে।

    বৈঠক শেষে মেয়র সাইদ খোকন বলেন, নির্ধারিত দামের চেয়ে কোথাও বেশি দামে মাংস বিক্রি করা হলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া ডিপার্টমেন্টাল স্টোরগুলোতে গ্রাহকদের চাহিদা অনুযায়ী মাংস বিক্রি করা যাবে।

    ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আজকের এই সিদ্ধান্ত আপনারা মেনে চলবেন। কেউ যদি এর চেয়ে বেশি দাম রাখেন তাহলে সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিবে। নির্ধারিত এই দামে সুপারশপেও মাংস বিক্রি করা হবে।

    তবে মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব রবিউল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, গাবতলীর পশুর হাটে সরকার প্রতিটি গরুর হাসিল ১০০ টাকা নির্ধারণ করে দেয়া সত্ত্বেও নেয়া হচ্ছে ৫ হাজার টাকা থেকে ৮ হাজার টাকা। হাটের ইজারাদারের চাঁদাবাজির কারণে ব্যবসায়ীদের অতিরিক্ত টাকা গুনতে হয়, যা মাংসের দামের ওপর প্রভাব ফেলে।

    তিনি আরো বলেন, বারবার অভিযোগ করার পরেও উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এই সমস্যার যদি সমাধান করা যায়, তাহলে অনেক কম দামে মাংস বিক্রি করা যাবে।

    (Visited 6 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *