Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / আইন ও অপরাধ / ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি নয়: হাইকোর্ট ।। songbadprotidinbd.com

ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি নয়: হাইকোর্ট ।। songbadprotidinbd.com

  • ২৭-০৪-২০১৯
  • image-70421-1556193347নিজস্ব প্রতিবেদক: বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বৃহস্পতিবার সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের করা এক রিট আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক-আল-জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে জেলা প্রশাসক ও সিভিল সার্জনদের প্রতি এ বিষয়ে সার্কুলার ইস্যু করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে রুলও জারি করেছে আদালত।

    ব্রিটিশ দৈনিক ‘দ্য টেলিগ্রাফ’সহ দেশের কয়েকটি দৈনিকে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন যুক্ত করে বুধবার আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন রিটটি দায়ের করেন।

    সৈয়দ সায়েদুল হক বলেন, রোগের চাহিদা ছাড়াও ফার্মেসিগুলোতে রোগীকে অ্যান্টিবায়োটিক দেয়া হয়। শরীরে অতিরিক্ত অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারের একপর্যায়ে এসব রোগীর শরীরে আর অ্যান্টিবায়োটিক কাজ করে না। সম্প্রতি অতিরিক্ত অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারের কারণে মানুষ মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। জাতীয় একটি দৈনিকে এ-সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

    রিট আবেদনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক গবেষণা প্রতিবেদন তুলে ধরে বলা হয়, অ্যান্টিবায়োটিকের প্রতি শরীর প্রতিরোধ গড়ে তুললে সে অবস্থাকে বলা হয় অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স। এই প্রবণতার কারণে প্রতিবছর বিশ্বে সাত লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। ২০৫০ সাল নাগাদ এ সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াতে পারে এক কোটিতে। পশুখাদ্য, মাছ এবং কৃষিতে অতিমাত্রায় অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ বিপজ্জনক অবস্থায় রয়েছে। সবচেয়ে বেশি অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করা হচ্ছে কৃষিতে, যা দেশে ব্যবহৃত মোট অ্যান্টিবায়োটিকের প্রায় অর্ধেক।

    ফলে খুব সহজেই কৃষি খাদ্যের মধ্য দিয়ে এই অ্যান্টিবায়োটিক মানুষের শরীরে ঢুকছে। এতে একদিকে যেমন অ্যান্টিবায়াটিকের কার্যকারিতা হারাচ্ছে, তেমনি শরীরও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হারাচ্ছে। অতিমাত্রায় অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারের কারণে সামান্য জীবানু সংক্রমণও এখন ব্যবহারকারীর জীবনের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

    পরিবেশবাদি সংগঠন পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের প্রকাশিত প্রতিবেদন উদ্ধৃত করে রিটে বলা হয়, কৃষিখাদ্যের মাধ্যমে উচ্চমাত্রার অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ করায় রাজধানীর ৫৫.৭ শতাংশ মানুষের ক্ষেত্রে অ্যান্টবায়োটিক অকার্যকর হয়ে পড়েছে।.

    (Visited 5 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *