Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / খেলাধুলা / বাস থেকে নেমে মসজিদে ঢুকলেই হতো তামিমদের সর্বনাশ ।। songbadprotidinbd.com

বাস থেকে নেমে মসজিদে ঢুকলেই হতো তামিমদের সর্বনাশ ।। songbadprotidinbd.com

  • ১৫-০৩-২০১৯
  • new_zealand_mosque_attack_11স্পোর্টস ডেস্কঃ  মসজিদের কাছে গিয়ে থামল বাস। নামার পালা। ঠিক এমন মুহূর্তে রক্তাক্ত এক নারীর কথায় বাস থেকে না নেমে মসজিদে না ঢুকে প্রাণে বাঁচল বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা।

    ততক্ষণে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালের আল-নুর নামের মসজিদটির ভেতরে কী ঘটেছে তা বুঝতে বাকি রইল না তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মিরাজদের। নামাজ পড়তে এসে তারা যে পড়ে গেছেন বন্দুকধারীদের হামলার কবলে!

    এই হামলায় বেশ কয়েকজনের প্রাণহানী ঘটনা ঘটেছে। অল্পের জন্যই রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা। তাদের প্রাণে বাচাঁর ত্রাতা বলতে হবে ওই রক্তাক্ত নারীকে।

    হ্যাগলি ওভালে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে থাকা এক সাংবাদিক জানান, মসজিদে ঢোকার ঠিক আগমুহূর্তে ওই অপরিচিত নারী এসে নাকি তামিমদের সতর্ক করে দেন যে মসজিদের ভেতরে গোলাগুলি হচ্ছে, এখন ভেতরে যাওয়া ঠিক হবে না।

    পরিস্থিতি তুলে ধরে ইএসপিএন ক্রিকইনফো জানিয়েছে, বাসে করে মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিল বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা। বাস থেকে নামার সময়ই মসজিতে হামলার আলামত দেখতে পাওয়া যায়। পরিস্থিতি দেখে খেলোয়াড়দের বাস থেকে নামতে নিষেধ করা যায়। কয়েক মিনিট পর হ্যাগলি পার্কের ভেতর দিয়ে দৌড়ে তারা মাঠে চলে যায়। সেখান থেকে ফিরে যায় টিম হোটেলে।

    তাৎক্ষণিক এক টুইট বার্তায় দলের ওপেনার তামিম ইকবাল জানিয়েছেন, “পুরো দল বন্দুকধারীদের হাত থেকে বেঁচে গেছে!!! খুবই ভয়াবহ অভিজ্ঞতা, সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।”

    ঘটনার পর পরই এক টুইটে এই উইকেটকিপার কাম ব্যাটসম্যান লিখেছেন- “আলহামদুল্লিলাহ, আজ ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে গুলির সময় আল্লাহ আমাদের বাঁচিয়ে দিয়েছেন।”

    “আমরা খুবই ভাগ্যবান…কখনোই এসব ঘটনা দেখতে চাই না…আমাদের জন্য দোয়া করবেন।”

    বাংলাদেশ দলের সবাই নিরাপদে আছেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের মিডিয়া ম্যানেজার জালাল ইউনুস, “তারা নিরাপদে আছে। তবে মানসিকভাবে তারা বড় ধাক্কা খেয়েছে। আমরা দলকে হোটেলের ভেতরেই থাকতে বলেছি।”

    হ্যাগলি ওভাল ছাড়াও ক্রাইস্টচার্চের আরো একটি মসজিদ ও একটি জায়গায় বন্দুকধারীরা একযোগে হামলা চালিয়েছে বলে সংবাদ মাধ্যমে খবর। দিনটাকে নিউ জিল্যান্ডের জন্য ‘কালো একটি দিন’ বলে উল্লেখ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন।

    এমন অবস্থায় বাংলাদেশ ও নিউ জিল্যান্ডের মধ্যকার সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্টটি বাতিলের ঘোষণা করেছে নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড।

    ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে শনিবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় টেস্টটি মাঠে গড়ানোর কথা ছিল।

    হ্যামিল্টন ও ওয়েলিংটনে সিরিজের প্রথম দুই টেস্টে কিউদের কাছে ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ।

    (Visited 10 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *