Templates by BIGtheme NET
Home / Slide Show / কোটা নয়, প্রাধান্য পাবে মেধা: মন্ত্রিপরিষদ সচিব ।। songbadprotidinbd.com

কোটা নয়, প্রাধান্য পাবে মেধা: মন্ত্রিপরিষদ সচিব ।। songbadprotidinbd.com

  • ১৩-০৮-২০১৮
  • image-40408-1534152120নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে সব ধরনের কোটা তুলে দিয়ে মেধাকে প্রাধান্য দিয়ে চূড়ান্ত সুপারিশ প্রতিবেদন তৈরি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে কোটা পর্যালোচনা কমিটি।

    সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকের প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান কোটা পর্যালোচনা কমিটির প্রধান মন্ত্রিপরিষদ সচিব  মোহাম্মদ শফিউল আলম। তবে মুক্তিযোদ্ধা কোটার বিষয়ে রায় থাকায় এ বিষয়ে আদালাতের শরণাপন্ন হয়ে সরকার পরামর্শ চাইবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

    তিনি বলেন, কোটার বিষয়ে সুপারিশ প্রায় চূড়ান্ত। মেধাকে প্রাধান্য দিয়ে কোটা প্রায় উঠিয়ে দেয়ার সুপারিশ করব।

    মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, আদালতের একটা রায় রয়েছে, মুক্তিযোদ্ধা কোটা সংরক্ষণ করতে হবে। যদি খালি থাকে তবে খালি রাখতে হবে। এটার ব্যাপারে কোর্টের মতামত চাইব, কোর্ট যদি এটাকেও উঠিয়ে দেয় তবে কোটা থাকবে না।

    ‘আর কোর্ট যদি রায় দেয় না ওই অংশটুকু সংরক্ষিত রাখতে হবে তবে ওই অংশটুকু বাদ দিয়ে বাকি সবটুকু উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। এটা হলো প্রাথমিক প্রস্তাবনা,’ বলেন সচিব। পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর কোটা সম্পর্কে জানতে চাইলে শফিউল আলম বলেন, ‘দেশের অনগ্রসর জনগোষ্ঠী এখন অগ্রসর হয়ে গেছে। তাই এ ক্ষেত্রে কোটার দরকার হবে না।’

    প্রসঙ্গত, সরকারি চাকরিতে কোটা প্রথার সংস্কার চেয়ে ৮ এপ্রিল শাহবাগে অবস্থান নেন শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। আন্দোলনের এক পর্যায়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় সংঘাত ছড়িয়ে পড়ে। এরই মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির বাসভবনে হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা।

    গত ২ জুন সরকারি চাকরিতে বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি পর্যালোচনা করতে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের নেতৃত্বে সাত সদস্যের এই কমিটি করে সরকার। কমিটিতে সাতজন শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তাকে সদস্য করা হয়।

    কমিটি গঠনের দিন থেকে ১৫ কর্মদিবস অর্থাৎ ২৩ জুলাইয়ের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।  বর্তমানে সরকারি চাকরিতে নিয়োগে ৫৬ শতাংশ পদ বিভিন্ন কোটার জন্য সংরক্ষিত; এর মধ্যে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের জন্য ৩০ শতাংশ, নারী ১০ শতাংশ, জেলা ১০ শতাংশ, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ৫ শতাংশ, প্রতিবন্ধী ১ শতাংশ।

    (Visited 10 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *