Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / লাইফস্টাইল / চুল পড়া বন্ধ হবে কিভাবে, জানেন কি? ।। songbadprotidinbd.com

চুল পড়া বন্ধ হবে কিভাবে, জানেন কি? ।। songbadprotidinbd.com

  • ২১-০৪-২০১৮
  • screenshot_144লাইফস্টাইল ডেস্কঃ  মানুষের সৌন্দর্যের অন্যতম আকর্ষণ হচ্ছে চুল।চুল পড়া সমস্যা বড় উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই সমস্যায় ভুগেছেন অনেকেই। বিশেষ করে শীত এসে গেলে নারী-পুরুষ নির্বিশেষ সবাই চিন্তায় পড়ে যান চুলপড়া কমানোর উপায় নিয়ে। মাত্রাতিরিক্ত চুল পড়ার কারণে পাতলা হয়ে যাচ্ছে মাথার চুল। এতে সৌন্দর্য হারাচ্ছেন আপনি। নানা রকম শ্যাম্পু ও তেল ব্যবহার করেছেন। আর শেষমেশ ডাক্তারের কাছে গিয়েও মিলছে না সমাধান।

    এক্ষেত্রে চুল পড়া রোধ ও চুলকে ভাল রাখতে খাদ্যাভাস ও চুলের যত্ন নেওয়াটা অনেক বেশি জরুরি। কারণ একটি উপযুক্ত ডায়েটই পারে চুলকে অনেকাংশে সুন্দর করে তুলতে।

    জেনে নিন বিভিন্ন ভিটামিন সমৃদ্ধ নয়টি খাবারের নাম, যেগুলো খেলে চুল পড়া তো কমবেই, সেইসঙ্গে গজাবে নতুন চুলও:

    শাক
    শাক চুল গজানোর ক্ষেত্রে অনেক বেশি কার্যকরী খাবার। আয়রন, ভিটামিন এ, ভিটামিন সি ও প্রোটিনের মূল উৎস হল শাক। এটি শুধুমাত্র আয়রন দ্বারা সমৃদ্ধ নয়, এটি প্রাকৃতিক কন্ডিশনিং এর ক্ষেত্রেও অনেক উপযোগী। এটি আমাদের আরও দেয় ওমেগা-৩ এসিড, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম ও আয়রন। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় তাই তো শাক রাখা জরুরি। কারণ এটি আমাদের স্ক্যাল্পকে স্বাস্থ্যকর ও চুলকে উজ্জল রাখতে সহায়তা করে।
    ডিম ও দুধ
    প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় ডিম রাখা উচিত। কারণ ডিম চুল গজাতে ও চুলকে শক্ত করে তুলতে সহায়তা করে। দুধ, ডিম ও দইয়ে প্রোটিন, ভিটামিন বি১২, আয়রন, জিঙ্ক এবং ওমেগা ৬ ফ্যাটি এসিড দ্বারা ভরপুর। বায়োটিন (ভিটামিন বি ৭) এর উৎস হল দুধ। যা চুল পড়া রোধে সহায়তা করে।
    আখরোট
    চুল পড়া রোধ করতে খাবারের তালিকায় রোজ কিছু আখরোট রাখা যেতে পারে। আখরোটে রয়েছে বায়োটিন, বি ভিটামিন( বি১, বি৬ এবং বি৯), ভিটামিন ই এবং প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন ও ম্যাগনেসিয়াম। যা চুলকে করে শক্ত ও মাথার ত্বককে পুষ্ট করে।

    পেয়ারা
    পেয়ারাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, যা কমলালেবুর তুলনায় অনেক বেশি। এই ভিটামিন সি চুলের আগা ফেটে যাওয়া ও ভেঙ্গে যাওয়া রোধে অনেক সহায়তা করে। পেয়ারা এমন একটি ফল যাতে ভিটামিন বি ও সি সমপরিমাণে রয়েছে, যা চুল বৃদ্ধিতে অনেক সহায়তা করে।

    ডাল
    ডালে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন, আয়রন, জিঙ্ক ও বায়োটিন যা চুলকে উজ্জল করতে অনেক কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। এছাড়াও ডালে রয়েছে ফলিক এসিড যা শরীরে রক্ত উৎপাদনে সহায়তা করে।

    বার্লি
    বার্লিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই। যা চুলকে সিল্কি করে তুলে। এতে আরও রয়েছে আয়রন ও কপার, যা রক্ত উৎপাদনে কাজ করে।

    শণ বীজ
    শণ বীজে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড, যা মাথার ত্বককে ভাল রেখে চুলকে উজ্জল করে তোলে। শণবীজ ভাল খাদ্যাভাসের মধ্যে অন্যতম এক খাবার।

    গাজর
    ভিটামিন-এ চোখের জন্য যেমন ভালো, তেমনি চুলের জন্যও তা দারুণ উপকারী। এটি কোষের বেড়ে ওঠাকে ত্বরান্বিত করে। তাই এই ভিটামিন সবজি গাজর বাড়াবে আপনার চুলের শক্তি ও সমৃদ্ধি।

    সামুদ্রিক মাছ
    চুলের আরেকটি বন্ধু হলো ভিটামিন বি। এই ভিটামিন লোহিত রক্তকণিকার সংখ্যা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। এতে করে রক্ত বেশি বেশি অক্সিজেন ও পুষ্টি মাথার তালু ও চুলের গোঁড়ায় পৌঁছে দেয়। এভাবেই তৈরি হয় শক্ত ও লম্বা চুলের ভিত। ভিটামিন বি প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায় সামুদ্রিক মাছে। সূত্র: এনডিটিভি

    (Visited 44 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *