Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি / ‘সরকার ফাইভজি সেবা চালু করার প্রস্তুতি নিচ্ছে’ ।। songbadprotidinbd.com

‘সরকার ফাইভজি সেবা চালু করার প্রস্তুতি নিচ্ছে’ ।। songbadprotidinbd.com

  • ০৩-০৪-২০১৮
  • image-68956সংবাদ প্রতিদিন বিডি প্রতিবেদকঃ  সরকার ফাইভজি ইন্টারনেট সেবা চালু করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তিনি বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যেই ফোরজি ইন্টারনেট সেবা চালু করেছি। উন্নত বিশ্বে ফাইভজি সেবা দেয়া হচ্ছে। প্রযুক্তিতে আমরা পিছিয়ে থাকবো কেন?’

    মঙ্গলবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ জনতা টাওয়ার সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের সেমিনার হলে বিপিও সামিটের সংবাদ সম্মেলনের এসব কথা বলেন মন্ত্রী। দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং বা বিপিও খাতের অবস্থানকে তুলে ধরার লক্ষ্যে আগামী ১৫ ও ১৬ এপ্রিল তৃতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হবে ‘বিপিও সম্মেলন বাংলাদেশ ২০১৮’।

    মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে এগিয়ে নেয়ার জন্য সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এ বছরের মধ্যে সব ইউনিয়ন ও ছিটমহলে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া হবে।’ দেশের বেকার তরুণদের সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ‘এখন আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো শিক্ষিত বেকারদের কর্মসংস্থান তৈরি করা। এ সমস্যা সমাধানের জন্য সরকার নানা ধরণের উদ্যোগ নিচ্ছে।’

    মন্ত্রী আরও বলেন, ‘বিপিও খাতে তরুণদের কাজে লাগাতে হবে। মেয়েদের বেশি বেশি অংশগ্রহণ করতে হবে। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত ও ভিয়েতনাম এই আউটসোর্সিং কাজে ভালো করছে। কারণ সবচেয়ে বেশি মেয়ে কাজ এই খাতে। আর আমাদের দেশে কিন্তু অনেক কম। যত বেশি এই খাতে মেয়ে আসবে এই বিপিও খাতে তত বেশি সফল হবে।’

    তিনি বলেন, ‘যেকোনও জায়গায় বসে সব শ্রেণির মানুষের চাকরির সুযোগ রয়েছে বিপিও সেক্টরে। আমরা এ সামিটে তা তুলে ধরার চেষ্টা করবো। সামিটে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দক্ষ তরুণদের এনে চাকরির দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।’

    সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এই সামিটে দেশের অন্তত ১০টি প্রতিষ্ঠান কর্মী নেবে। গতবার শুধুমাত্র সিভি নেওয়া হলেও এবার সরাসরি সাক্ষাতকারের সুযোগ থাকছে। সেখান থেকেই প্রতিষ্ঠানগুলো পছন্দের প্রার্থীকে বেছে নিতে পারবেন।

    রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ে অনুষ্ঠিত হবে দুই দিনের বিপিও সামিট বাংলাদেশ ২০১৮ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি-বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ। আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এবারের আয়োজনে ১০টি সেমিনার ও কর্মশালায় ৪০ জন স্থানীয় এবং ২০ জন আন্তর্জাতিক বক্তা অংশগ্রহণ করবেন। দুইদিনের মূল আয়োজনের আগে ৩০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাক্টিবেশন কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে।

    সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মহাপরিচালক একেএম খায়রুল আলম, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কলসেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং (বাক্য) এর সভাপতি ওয়াহিদ শরীফ, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ হোসেনসহ খাত সংশ্লিষ্টরা।

     

    আয়োজনে অংশীদার হিসেবে যুক্ত হয়েছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস), বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস), বাংলাদেশ ওমেন ইন টেকনোলজি (বিডব্লিউআইটি), আইএসপি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) ও বাংলাদেশ মোবাইল ফোন ইমপোর্টারস অ্যাসোসিয়েশন (বিএমপিআইএ) ইত্যাদি।

    (Visited 9 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *