Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / জাতীয় / বর্জ্য অপসারণে নিয়ম মানছে না রাজধানীর দুই সিটি কর্পোরেশন ।। songbadprotidinbd.com

বর্জ্য অপসারণে নিয়ম মানছে না রাজধানীর দুই সিটি কর্পোরেশন ।। songbadprotidinbd.com

  • ০৮-০১-২০১৮
  • wast-600x357সংবাদ প্রতিদিন বিডি রিপোর্টঃ  রাত ১০টা থেকে সকাল ৬টার মধ্যে বর্জ্য ও ময়লা অপসারণে ঢাকনাযুক্ত গাড়ি ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। অথচ সেই নির্দেশ মানতে পারছে না ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন। গত কয়েক দিন রাজধানীর বেশ কয়েকটি স্থানে দিনের বেলায় ট্রাকে বর্জ্য অপসারণ করতে দেখা গেছে। একই সঙ্গে ঢাকনা ছাড়া গাড়ি ব্যবহার করতেও দেখা গেছে সংস্থাগুলোকে। এসবের ফলে প্রতিদিনই ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধ পোহাতে হচ্ছে নগরবাসীকে। তবে সিটি করপোরেশন বলছে, রাত ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত নগরীতে পরিবহনের আধিক্য থাকা এবং ঢাকনাযুক্ত ট্রাকের স্বল্পতার কারণে নির্দিষ্ট সময় বর্জ্য অপসারণ করতে পারছে না।

    জানা যায়, চলতি বছরের ১৬ অক্টোবর বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ নির্দেশ দেন যে রাত ১০টা থেকে ভোর ৬টার মধ্যে ঢাকার বর্জ্য অপসারণ করতে হবে। একই সঙ্গে ময়লা অপসারণে ঢাকনাযুক্ত গাড়ি ব্যবহারও করতে বলা হয়েছে। কিন্তু সিটি করপোরেশন ময়লা অপসারণ করতে ব্যর্থ হচ্ছে। প্রতিদিন অহরহ ট্রাক ও ভ্যানে করে ময়লা অপসারণ করতে দেখা যায়।

    পান্থপথ সিগন্যালের অদূরে গ্রিনরোড থেকে বাংলামোটর যাওয়ার গলিতে দুটি ভ্যানে করে কয়েকটি রেস্টুরেন্টের ময়লা নিয়ে যেতে দেখা গেছে। একই চিত্র দেখা গেছে কারওয়ান বাজার এলাকার হোটেল সোনারগাঁওয়ের সামনে। বাংলামোটর থেকে মগবাজার মোড়ে যেতে উত্তর সিটি করপোরেশনের দুটি ময়লার কনটেইনারেও সারা দিনই ভ্যানে করে ময়লা নিয়ে আসেন পরিচ্ছন্নকর্মীরা। বিএফডিসির মোড় থেকে মগবাজার রেলগেট যেতে হাতিরঝিলের সামনে প্রধান সড়কের ওপর, সাতরাস্তা থেকে বেগুনবাড়ী যাওয়ার সড়কের মাথায় এবং শুক্রাবাদ মোড়ে থাকা ময়লার কনটেইনারেও দিনের বেলায় ভ্যানভর্তি ময়লা নিয়ে যেতে দেখা গেছে পরিচ্ছন্নকর্মীদের।

    343e03408bf6f34eea9ef86a363634f2-58292c6a54b1dএসব ভ্যান থেকে ময়লা উপচে পড়ছিল। কয়েক দিন আগে বিএফডিসির সামনে থেকে দুপুরে পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের ট্রাকে আবর্জনা উঠাতে দেখা গেছে। এ ছাড়া ধানমন্ডি ৩২ ও সায়েন্সল্যাব এলাকায় রাস্তার ওপরে কয়েকটি কনটেইনার রয়েছে। সেখানে ভ্যানে করে এনে ময়লা ফেলছিলেন কিছু পরিচ্ছন্নতাকর্মী। রাজধানীর বেশির ভাগ এলাকায় একই চিত্র দেখা যায়। গত তিন-চার দিনে এ রকম চিত্র দেখেছেন এই প্রতিবেদক।

    এদিকে বর্জ্য পরিবহনে ঢাকনাযুক্ত গাড়ি ব্যবহারের জন্য হাইকোর্ট নির্দেশনা দিলেও তা বস্তবায়ন হয়নি। রাজধানীর অনেক এলাকায় খোলা ট্রাকে করে ময়লা পরিবহন করতে দেখা গেছে।

    বিএফডিসির সামনে কথা হয় পথচারী ইলিয়াছ হোসেনের সঙ্গে। তিনি বলেন, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন অফিসে যাতায়াত করি। প্রতিদিনই দেখি পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা ভ্যানে করে ময়লা নিয়ে এসে এখানে ফেলছেন। আবার ট্রাকে করে এখান থেকে ময়লা নিতেও দেখি। পরিচ্চন্নতাকর্মীরা ময়লা ফেলা এবং ট্রাকে তোলার কারণে দুর্গন্ধে আশপাশে টেকা দায়।

    হাইকোর্ট নির্দেশনা দেওয়ার পর ওইদিনেই ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে (ডিএসসিসি) নতুন সংযুক্ত দনিয়া ইউনিয়নে উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, বর্জ্য অপসারণে হাইকোর্টের দেওয়া নির্দেশনা যথাযথভাবে পালন করবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। হাইকোর্টের নির্দেশনা যথাযথভাবে পালন করা হবে। সংশ্লিষ্টরা নিয়ম না মানলে তাদের ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুশিয়ারি দেওয়া হয়।

    তবে সংশ্লিষ্টরা জানান, এ মুহূর্তে আদালতের নির্দেশ পুরোপুরি পালন করার মতো জনবল ও সরঞ্জামাদি নেই সংস্থা দুটির। এর ফলে বেঁধে দেওয়া সময়ে আবর্জনা অপসারণ সম্ভব নয়।

    এ বিষয় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী আবদুল্লাহ হারুন বলেন, ‘আমরা হাইকোর্টে নিয়ম মেনে সব সময় মনিটরিং করছি। কিন্তু সময়মতো বর্জ্য অপসারণ করতে সক্ষম হচ্ছি না। কারণ রাত ১০টার পরে রাজধানীতে ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান প্রবেশ করে। বিভিন্ন সড়কে থাকে যানজট। এ সময় ঝাড়– দেওয়া সম্ভব নয়। এ ছাড়া যানবাহনের স্বল্পতার সমস্যা তো আছেই।’ এই কর্মকর্তা আরো বলেন, ‘ময়লা অপসারণ করতে গিয়ে গত বছরের ২ ও ১৬ নভেম্বর দুজন পরিচ্ছন্নতাকর্মী সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান। তাই আমরা হাইকোর্টের আদেশের লিখিত জবাব দিয়েছি। সেখানে ময়লা অপসারণের সময় রাত ১২টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত করার আবেদন করেছি। এ ছাড়া আধুনিক কম্পেক্টর ট্রাকটার (কাভার ট্রাক) পূরণ করতে এক বছর সময় লাগবে।’

    এ বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘আমরা হাইকোর্টের রুলের জবাব দিয়েছি। যেহেতু বিষয়টা নিয়ে এখনো আইনি লড়াই চলছে। সুতরাং এ বিষয়টা নিয়ে এখন কিছু বলা যাচ্ছে না।’

    সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা যায়, দুই সিটি করপোরেশনে ৪২২টি ময়লার কনটেইনার রয়েছে। এর মধ্যে দক্ষিণে ৩৭০ এবং উত্তরে ৫২টি আবর্জনার কনটেইনার রয়েছে। আর এর জন্য পরিচ্ছন্নতাকর্মী রয়েছে দক্ষিণে ৫ হাজার ২৩৯ জন এবং উত্তরে ৩ হাজার ১২৬ জন। প্রতিদিন গড়ে দক্ষিণে ২৫০০ টন ও উত্তরে ২৭০০ টন বর্জ্য উৎপাদন হয়। এ ছাড়া দক্ষিণে বর্জ্য পরিবহনের গাড়ি রয়েছে ৩১২টি। এর মধ্যে খোলা ট্রাক ১৫০, কাভার্ড ট্রাক ৬ ও আধুনিক কম্পেক্টর ৩২টি।

    (Visited 12 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *