Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / জাতীয় / সরকারি প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া ১৩৭০ কোটি টাকা ।। Songbad Protidin BD

সরকারি প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া ১৩৭০ কোটি টাকা ।। Songbad Protidin BD

  • ১১-১০-২০১৭
  • 1157576-WAPDAx-1470590032সংবাদ প্রতিদিন বিডি ডেস্কঃ  সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও দপ্তর, আধাসরকারি ও স্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের কাছে বিদ্যুৎ বিল বাবদ বকেয়া পড়েছে অন্তত ১ হাজার ৩৭০ কোটি ৭ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। গত বছর এ বকেয়ার পরিমাণ ছিল প্রায় ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা। বিদ্যুৎ বিতরণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বারবার তাগাদা দিয়েও এই বিপুল পরিমাণ বকেয়া অর্থ আদায় করতে পারছে না। উপরন্তু দিন দিন বাড়ছে বকেয়ার পরিমাণ। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে বিতরণ সংস্থা-কোম্পানিগুলোর উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন ও গ্রাহকসেবার ওপর। প্রকল্প বাস্তবায়নের গতি হয়ে যাচ্ছে ধীর। অথচ কোম্পানি পরিচালনার ব্যয় মেটানো যাচ্ছে না এমন যুক্তিতে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে যার মাসুল দিতে হবে সাধারণ গ্রাহকদের।

    বর্তমানে দেশে ছয়টি সংস্থা-কোম্পানি বিদ্যুৎ বিতরণ করছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দায় বহন করছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি)। ৪৯১ কোটি টাকারও বেশি বিল খেলাপ করেছে কোম্পানিটির সরকারি গ্রাহকরা। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) বকেয়া অর্থের পরিমাণ ৩৬৯ কোটি ৯ লাখ টাকা। সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে ঢাকা ইলেক্ট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানির (ডেসকো) বকেয়া ১২১ কোটি ১৩ লাখ টাকা, পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (আরইবি) ৪৯ কোটি ১২ লাখ টাকা, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ওজোপাডিকো) ১১৭ কোটি ১৩ লাখ টাকা এবং নবগঠিত নর্থ ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (নওজোপাডিকো) ২১৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকা।

    বকেয়ার ফিরিস্তিসবচেয়ে বেশি বিল খেলাপ করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। সরকারের এ বিভাগের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মিলিয়ে বিদ্যুৎ বিলের বিপরীতে মোট বকেয়া জমেছে ৬৭৫ কোটি ৩০ লাখ টাকারও বেশি। এর মধ্যে পিডিবির পাওনা ১৭০ কোটি ও ডিপিডিসির পাওনা ২৭০ কোটি টাকা।ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া আছে ৯৬ কোটি টাকা; গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের ৯৫ কোটি ১৫ লাখ; দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের ৮১ কোটি ৮৩ লাখ; মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের ৪৫ কোটি ২৩ লাখ; জননিরাপত্তা বিভাগের ৩৯ কোটি ৩১ লাখ; বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের ৩৬ কোটি; স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের ৩৬ কোটি; জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ২৬ কোটি ৩৫ লাখ, কৃষি মন্ত্রণালয়ের ২২ কোটি ৫৩ লাখ, শিল্প মন্ত্রণালয়ের ২১ কোটি টাকা।

    বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অধীন খোদ জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগ থেকেও পাওনা রয়েছে ১৭ কোটি ২৬ লাখ টাকা। এ ছাড়া প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বকেয়া জমেছে ১৪ কোটি ৩৬ লাখ টাকা, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের ১৩ কোটি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পৌনে ১৩ কোটি; স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের ১১ কোটি ৭০ লাখ; যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ১০ কোটি ৩০ লাখ; ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ১০ কোটি ২৪ লাখ; কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের ১০ কোটি ৩১ লাখ; মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ৮ কোটি ৩৪ লাখ; পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের ৮ কোটি ১৩ লাখ; খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ৭ কোটি ৯৭ লাখ; সড়ক পরিবহন বিভাগের ৭ কোটি ৯৫ লাখ; আইন ও বিচার বিভাগের ৭ কোটি ৮৫ লাখ; পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ৭ কোটি ৩৩ লাখ; মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ৭ কোটি ২২ লাখ; বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের ৬ কোটি ৩১ লাখ; ভূমি মন্ত্রণালয়ের ৩ কোটি ৮৮ লাখ; সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ৩ কোটি; সুরক্ষা সেবা বিভাগের ৩ কোটি ৯১ লাখ; তথ্য মন্ত্রণালয়ের ২ কোটি ৮৪ লাখ; সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের পৌনে ৩ কোটি; অর্থ বিভাগের ২ কোটি ৩৪ লাখ; পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের ১ কোটি ৪৭ লাখ; মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ১ কোটি ৪৬ লাখ; আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের ১ কোটি ৩৮ লাখ; নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের ১ কোটি ৩৬ লাখ; অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের ১ কোটি ৩৫ লাখ; শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ১ কোটি ১৪ লাখ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ১ কোটি টাকার বেশি বকেয়া বিল রয়েছে।

    সরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছে বিপুল পরিমাণ বকেয়া বিল কেন এবং আদায়ে বাধা কোথায় এমন প্রশ্নের জবাবে একটি বিদ্যুৎ বিতরণকারী কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, অনেক সরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছে বকেয়া বিল পরিশোধের জন্য ২০-২৫ বারের বেশি চিঠি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাদের কার্যকর কোনো সাড়া মিলছে না। অনেকে মোট বকেয়ার কিছু অংশ পরিশোধ করে আবার দীর্ঘদিন ধরে বিল পরিশোধ করে না। ফলে বকেয়ার পরিমাণও বেড়ে যায়। এটি আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক দুর্বলতারও নির্দেশক।

    (Visited 17 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *