Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / রাজনীতি / রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতীয় ঐক্যের প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য একগুয়েমীর পরিচয় : ড. খন্দকার মোশাররফ – Songbad Protidin BD

রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতীয় ঐক্যের প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য একগুয়েমীর পরিচয় : ড. খন্দকার মোশাররফ – Songbad Protidin BD

  • ২৩-০৯-২০১৭
  • image-50534সংবাদ প্রতিদিন বিডি প্রতিবেদক: রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতীয় ঐক্যের প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা তার একগুয়েমীর পরিচয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

    শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘বিচার বিভাগ-সরকার বাহাস: বাংলাদেশে আইনের শাসনের ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন।

    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রে এক অনুষ্ঠানে বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল আখ্যা দিয়ে বলেন, বিএনপির সাথে কোনো ঐক্য নয়। শেখ হাসিনার এমন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে বিএনপি নেতা মোশাররফ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমার নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। আমাদের দল নাকি সন্ত্রাসী দল। একজন প্রধানমন্ত্রীর কাছে এ রকম বক্তব্য দুঃখজনক। বিএনপি দেশের সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক দল। এ দল তিনবার জনগণের ভোটে ক্ষমতায় এসেছে।’

    ‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে কূটনৈতিকভাবে সরকার একা হয়ে গেছে’- উল্লেখ করে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, আমরা এ সংকটে সরকারের কাছে জাতীয় ঐক্যের আহ্বান জানিয়েছি কিন্তু প্রধানমন্ত্রী যে বক্তব্য রেখেছেন তা অত্যন্ত দুঃখজনক।

    তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ। কোনো দেশ তাদের সহায়তা করছে না। তখন আমরা সরকারের কাছে জাতীয় ঐক্য গঠনের প্রস্তাব নিয়ে গেছি কিন্তু তারা তাতে সাড়া দিচ্ছে না।

    তিনি বলেন, ভারত সফর করে প্রধানমন্ত্রী বললেন- আমাদের সাথে ভারতের হিমালয় সমান কূটনৈতিক সম্পর্ক। চীন থেকে ফিরে বলেছিলেন, চীনের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক আকাশ ছোঁয়া। কোথায় তাদের সেই কূটনৈতিক সম্পর্ক। ভারত আর চীন সরকার রোহিঙ্গা বিষয়ে সরকারকে কোনো সহায়তা করছে না।

    তিনি আরো বলেন, ভারত মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রি করছে এবং তাদের দেশে কোনো শরণার্থী ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হয়তো রোহিঙ্গা বিষয়ে এমন কোনো কথা বলেছেন যে কারণে শেখ হাসিনা বললেন রোহিঙ্গা বিষয় আমেরিকার কাছে কিছু আশা করেন না। তাই আমরা মনে করি এই সংকট মোকাবেলায় জাতীয় ঐক্য জরুরি।

    বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সিনিয়র সদস্য বলেন, মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আমাদের দেশে আশ্রয় দেয়া হয়েছে। কিন্তু তাদের স্থায়ীভাবে মিয়ানমারে ফেরত পাঠাতে হবে। যেটা ১৯৭৮ সালে জিয়াউর রহমানের সময় হয়েছে। ১৯৯১ সালে বেগম খালেদা জিয়ার সরকারের সময় হয়েছে।

    সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী রায়ের বিষয়ে তিনি বলেন, রায়ে যে বিষয়গুলো বলা হয়েছে তাতে সরকারের গায়ে লেগেছে। তারা নিজেরাই এটাকে গায়ে লাগিয়েছে। রায়ের পর সরকারের মন্ত্রী-এমপিরা বিচার বিভাগকে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। তারা ব্যক্তিগতভাবে প্রধান বিচারপতিকে আক্রমণ করে কথা বলছে।

    ড. মোশাররফ বলেন, এখন যদি আপিলে এই রায়ের কোনো পরিবর্তন হয় তাহলে কি আমরা মনে করবো চাপের কারণে বিচারকরা রায় পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছেন। এমনটা হলে আইনের শাসনের ভবিষ্যৎ নিয়ে আমরা শঙ্কিত।

    বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট আব পলিটিক্স স্টাডিজ (বিপস) আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার সরোয়ার হোসেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিপসের সভাপতি ব্যারিস্টার শাকিলা ফারজানা।

    আলোচনা সভায় কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, শওকত মাহমুদ, সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক হাসান তালুকদার, এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, মো. সালাহউদ্দিন খান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

    (Visited 15 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *