Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / ব্রেকিং নিউজ / আর্থিক সাতটি বিষয়, যা সন্তানকে শেখাবেন – songbadprotidinbd.com

আর্থিক সাতটি বিষয়, যা সন্তানকে শেখাবেন – songbadprotidinbd.com

  • ০৯-০১-২০১৭
  • image-14783লাইফস্টাইল ডেস্ক: পরিবারই হলো একটি শিশুর প্রথম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আর বাবা-মা হলেন সেই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক। কারণ, শিশুদের নৈতিক শিক্ষার ভিত্তি গড়ে ওঠে পরিবার থেকে। আমাদের পিতামাতা কিংবা অভিভাবক বহু বিষয়ই শিখিয়ে থাকেন। কিন্তু অনেক বাবা-মা সন্তানদের আর্থিক বিষয় থেকে দূরে রাখেন। যার ফলে সন্তানদের মাঝে টাকা-পয়সা নিয়ে অনেক ভুল ধারণা থাকে। তাই প্রত্যে বাবা-মারই উচিৎ সবকিছু পাশাপাশি আর্থিক বিষয়েও সন্তানকে শিক্ষা দেয়া। আজকের লেখায় থাকছে আর্থিক সাতটি বিষয়, যা সন্তানকে প্রত্যেক বাবা-মায়ের শেখানো উচিৎ।

    অর্থ সুখ কিনতে পারে না
    প্রত্যেক পিতামাতা কিংবা অভিভাবএক তাদের সন্তানকে বোঝানে বা শেখানো উচিত যে, টাকা-পয়সার বিনিময়ে কখনোই সুখ পাওয়া যায় না। আপনার পিতামাতা যদি এটি খুব ছোটবেলা থেকে শেখায় তাহলে আপনি হয়তো বুঝবেন যে, অর্থ সাময়িক সন্তুষ্টি আনতে পারে। কিন্তু দীর্ঘস্থায়ী কোনো উপকার করে না। বিশেষ করে অর্থ দিয়ে কোনো জিনিস কিনলে যে সুখ পাওয়া যায়, তা কিছু পরেই ফিকে হয়ে আসে। অর্থ আমাদের স্বাস্থ্য, সুখের জীবন ইত্যাদির কোনোকিছুরই নিশ্চয়তা দিতে পারে না।

    আয়ের চেয়ে কম ব্যয় করা
    বহু মানুষকেই আর্থিক টানাপড়েনের মধ্যেই নতুন নতুন জিনিস কিনতে উদ্যোগী হতে দেখা যায়। আর এতে তাদের অনিশ্চয়তা ও মানসিক চাপ বেড়ে যায়। কিন্তু এ সমস্যার খুব সহজ সমাধান হলো আয়ের তুলনায় কম ব্যয় করা। এটি হতে পারে আপনার সুখের অন্যতম চাবিকাঠি।

    সব সময় চুক্তি করে নেয়া
    ব্যবসার কাজে কিংবা অপরিচিত ব্যক্তিদের সাথে লেনদেনের সময় আমরা চুক্তি করে নেই। কিন্তু পরিচিত মানুষ কিংবা আত্মীয়-স্বজন বা বন্ধু-বান্ধবের সাথে এ ধরনের আর্থিক লেনদেনের সময় আমরা চুক্তি করি না। ফলে নানা ভুল-বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। এতে নষ্ট হয় সম্পর্ক। আর এ সমস্যা সমাধানে সব সময় আর্থিক লেনদেন বা অনুরূপ বিষয়ে একটি চুক্তি করে নিতে হবে। সে চুক্তি হতে পারে মৌখিক বা লিখিত।

    নিজেকে জাহির করার প্রয়োজনীয়তা
    আধুনিক যুগে ‘নিজের ঢোল নিজেই পেটানো’ নীতি অবলম্বনের প্রয়োজন রয়েছে। আপনার সাফল্য যদি অন্যকে না জানান তাহলে তার কথা অন্য মানুষ নাও জানতে পারে। তাই বলে এটি সব সময় করতে হবে এমন কোনো কথা নেই। প্রয়োজনের মুহূর্তে এ বিষয়টি অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

    সঞ্চয়ের নানা উপায়
    আপনার পিতামাতা হয়তো ব্যাংকে গিয়ে সঞ্চয়ী অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন কিন্তু সঞ্চয়ের আরও যে নানা উপায় রয়েছে, সে সম্বন্ধে অতটা জানেন না। এখন সঞ্চয়পত্র কিংবা বিভিন্ন ব্যাংকের নানা সঞ্চয় প্রকল্প চালু হয়েছে। এসব প্রকল্প থেকে সঞ্চয় অ্যাকাউন্টের তুলনায় বেশি লভ্যাংশ পাওয়া যায়।

    বন্ধুরা সঞ্চয় অভ্যাসে প্রভাব বিস্তার করে
    আপনার কাপড়, ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য কিংবা যাই কেনার প্রতি আগ্রহ থাক না কেন, এগুলোর কেনার সিদ্ধান্ত একা নেওয়াই ভালো। অন্যথায় আপনার বন্ধুরা এসব পণ্য কেনার ক্ষেত্রে প্রভাব বিস্তার করতে পারে। আর এ প্রভাব তারা তাদের নিজস্ব রুচি বা প্রয়োজনীয়তা অনুসারে ফেলবে। এতে আপনার প্রয়োজনীয়তা গুরুত্ব নাও পেতে পারে।

    মূল্যছাড়ের খোঁজ করা
    বিভিন্ন দোকানে প্রায় সময়েই মূল্যছাড় কিংবা পণ্যের সঙ্গে নানা উপহার দেয়। কেনার সময় এসব ছাড়ের দিকে লক্ষ্য রাখুন। সম্পূর্ণ মূল্য দিয়ে কেনার চেয়ে এসব অফারের মধ্যে পণ্য কেনা লাভজনক। খুব প্রয়োজন না হলে জুতা কিংবা কাপড় কেনার আগে মূল্যছাড়ের জন্য অপেক্ষা করুন। এতে আপনার যথেষ্ট আর্থিক সাশ্রয় হবে।

    সংবাদ প্রতিদিন বিডি/ শাহ আলম 

    (Visited 23 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *