Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / Slide Show / খালেদার বিরুদ্ধে সমন

খালেদার বিরুদ্ধে সমন

  • ২৫-০৭-২০১৬
  • image_161391_0নড়াইল প্রতিনিধি
    নড়াইল: মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে বক্তব্যের জেরে নড়াইলে দায়ের মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন আদালত।
    সোমবার নড়াইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সদর আমলী আদালতের বিচারক মো. জাহিদুল আজাদ আগামী ২৩ আগস্ট খালেদা জিয়াকে সশরীরে আদালতে হাজিরের নির্দেশ দেন।
    ২০১৫ সালের ২৪ ডিসেম্বর জেলার কালিয়া উপজেলার চাপাইল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মো. ইউসুফ আলী ফারুকীর ছেলে মো. রায়হান ফারুকী ইমাম বাদী হয়ে মামলাটি করেন।
    মামলায় তিনি অভিযোগ করেন, আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান এবং বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রতি শ্রদ্ধাশীল একজন মানুষ। বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের প্রতি অসীম শ্রদ্ধাশীল এবং মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের সখ্যার প্রতিও দৃঢ় বিশ্বাসী।বাংলাদেশের মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু মেখ মুজিবুর রহমানের সকল কথা ও কাজের প্রতি অসীম শ্রদ্ধাশীল একজন দেশ প্রেমিক নাগরিক।

    অন্যদিকে উপরোক্ত আসামি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির চেয়ারপারসন। গত ২১/১২/১৫ তারিখ সন্ধ্যায় তিনি ঢাকায় মুক্তিযোদ্ধাদের একটি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, “স্বাধীনতা যুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ হয়েছেন বলা হয়। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে কতজন শহীদ হয়েছেন, তা নিয়ে বির্তক আছে।”

    এ ছাড়া তিনি একই সমাবেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম উল্লেখ না করে তাকে ইঙ্গিত করে বলেন, “তিনি স্বাধীনতা চাননি। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন। স্বাধীন বাংলাদেশ চাননি।”

    আসামির এই বক্তব্য বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় প্রচারিত হয় এবং পরের দিন ২২/১২/১৫ তারিখে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

    এ মামলায় সাক্ষী করা হয়েছে নড়াগাতী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাঐশোনা গ্রামের হাজি মফিজুল হক, নড়াগাতী থানার দক্ষিণ যোগানিয়া গ্রামের মৃতশেখ মোসলেম উদ্দিনের ছেলে মো. ইকতারুজ্জামান, বাগুডাঙ্গা গ্রামের মৃত মোমরেজ মোল্যার ছেলে মিজানুর রহমান মোল্লাকে।

    মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম জানান, বাদীর নালিশের ভিত্তিতে ৫০০/৫০১/৫০২ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

    (Visited 52 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *