Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / জাতীয় / জেএসডির নেতৃত্বে পরিবর্তনের আভাস

জেএসডির নেতৃত্বে পরিবর্তনের আভাস

  • ১৫-০২-২০১৬
  •  

    rab-malek111_20869

     

    নিজস্ব প্রতিবেদক   :  জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) নেতৃত্বে পরিবর্তনের কথা শোনা যাচ্ছে। বিশেষভাবে দলটির সাধারণ সম্পাদক পদে ১৮ বছর ধরে দায়িত্বপালনকারী আবদুল মালেক রতনের পদে একজন প্রতিদ্বন্দ্বীর নাম শোনা যাচ্ছে নেতাকর্মীদের মুখে। তবে সভাপতির পদে আ স ম আবদুর রবের কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই বলে দলীয় সুত্রে জানা গেছে।
    ২৫ ফেব্রুয়ারি দলটির কেন্দ্রীয় কাউন্সিল। ঢাকার মহানগর নাট্যমঞ্চে এর আয়োজন করা হয়েছে। কাউন্সিল শুরু হবে সকাল ১০টায়। জেলা ও মহানগর নিয়ে গঠিত ৭২টি সাংগঠনিক কমিটির মধ্যে ইতোমধ্যে ৫২টির কাউন্সিল সম্পন্ন হয়েছে। গত তিন মাস ধরে দেশব্যাপী এই কার্যক্রম চলছে। কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের আগে বাকি কমিটিগুলোর কাউন্সিলও শেষ হবে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।
    ২০১২ সালের এপ্রিলে সর্বশেষ কেন্দ্রীয় কাউন্সিল হয়েছিল। ওইসময় সভাপতি নির্বাচিত হন আ স ম আবদুর রব। সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন আবদুল মালেক রতন। কাউন্সিলে তিন বছর মেয়াদী কমিটি গঠন করা হয়।
    দ্বিতীয় ধারার রাজনীতি ও তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তির প্রসারে ঐক্যবদ্ধ হোন এবারের কাউন্সিলের স্লোগান। দলটির নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সভাপতি পদে আ স ম আবদুর রবের প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকলেও সাধারণ সম্পাদক পদে গত ১৮ বছর সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্বপালনকারী আবদুল মালেক রতন ও দলটির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আতাউল করিম ফারুকের নাম শোনা যাচ্ছে।
    দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন জানান, কাউন্সিলের জন্য ভোটাভুটির ব্যবস্থা থাকলেও অতীতের কোনো কাউন্সিলে তার প্রয়োজন হয়নি। তবে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী থাকলে অবশ্যই ভোট হবে। কেন্দ্রীয় কমিটির ১৯১জন সদস্য, জেলা ও মহানগর কমিটি থেকে ১হাজার ১০৪জন, ১৫টি শিল্পাঞ্চল কমিটির ৩০জন, বিভিন্ন পেশাজীবীদের মধ্য থেকে ১৩জন ও মনোনীত ১৩জনসহ মোট ১হাজার ৩৬৬জন কাউন্সিলর ভোট দেবেন।
    মনোনীত ১৩জনকে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মনোনয়ন দেন। এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে অবসরে যাওয়া ব্যক্তি, সংসদ সদস্য/সিটি কর্পোরেশনের মেয়র/ উপজেলা চেয়ারম্যান/পৌরসভা মেয়র কিংবা এসব পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী ব্যক্তিদের মধ্য থেকে যারা সবচেয়ে সক্রিয় তাদেরকে মনোনয় দেয়া হয় বলে তিনি জানান। কাউন্সিলে একজন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও দুজন নির্বাচন কমিশনার নির্বাচন পরিচালনা করেন।
    স্বাধীনতা যুদ্ধে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী ব্যক্তিবর্গের সমন্বয়ে ১৯৭২ সালের ৩১ অক্টোবর বহু আশা-আকাঙ্ক্ষা ও প্রত্যাশা নিয়ে গঠিত হয় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)। দলটির গঠনতন্ত্রে বলা হয়েছে, দলটির বাংলা নাম হবে ‘জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)’ আর ইংরেজি নাম ‘জেএসডি’।
    সময় গড়িয়ে ২০০১ সালে দলটিতে বিভাজন দেখা দেয়। তখন দল থেকে বের হয়ে যান বর্তমান তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তবে রাজনীতি থেমে থাকেনি। ২০০৮ সালে জাতীয় নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক দলগুলোর নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করা হয়। তখন আ স ম আবুদর রব ও হাসানুল হক ইনু উভয়ই ‘জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)’ নামে নিবন্ধনের জন্য আবেদন করেন। পরে নির্বাচন কমিশনের লটারির মাধ্যমে ‘জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)  নামটি নিবন্ধন পান হাসানুল হক ইনু। পরে দলটির ইংরেজি নাম ‘জেএসডি’ নামে নিবন্ধন পান আ স ম আবদুর রব।
    (Visited 8 times, 1 visits today)

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *