Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / রাজনীতি / ৭ আগস্ট ছাত্রলীগের বিশাল ছাত্রী সমাবেশ

৭ আগস্ট ছাত্রলীগের বিশাল ছাত্রী সমাবেশ

  • ২৬-০৭-২০১৬
  • 20gfgfgবঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিন উপলক্ষে ছাত্রী সমাবেশ করবে ছাত্রলীগ। আগামী ৭ আগস্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসিতে সকাল সাড়ে ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে এ সমাবেশ। সমাবেশের সার্বিক দায়িত্বে থাকবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ।

    এমন ছাত্রী সমাবেশ এ-ই প্রথম করছে ছাত্রলীগ। কিন্তু কেন? বর্তমান প্রজন্মের নারীদের রাজনীতিতে আসতে উৎসাহ জোগাতেই ব্যতিক্রমী এ আয়োজন। বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিনী ফজিলাতুন্নেছাকে জানার মাধ্যমে এ প্রজন্মের নারীরা যাতে দেশের কল্যাণে নিজেদের উৎসর্গ করতে পারে সেটাই হচ্ছে সমাবেশের মূল উদ্দেশ্য। এমনটাই জানিয়েছেন ছাত্রলীগ নেতারা।

    ১৯৩০ সালের ৮ আগস্ট গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গীপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ফজিলাতুন্নেছা। তার ডাক নাম ‘রেনু’। বাবার নাম শেখ জহুরুল হক ও মা হোসনে আরা বেগম। দাদা শেখ কাসেম। চাচাত ভাই শেখ লুৎফর রহমানের ছেলে শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে বেগম ফজিলাতুন্নেছার বিয়ে হয়। বিয়ে হয় দাদার উদ্যোগেই। গোপালগঞ্জ মিশন স্কুলে তিনি প্রাথমিক শিক্ষা নেন। এরপর তৎকালীন সামাজিক বিধিনিষেধের কারণে গ্রামে গৃহশিক্ষকের কাছে লেখাপড়া করেন।

    বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনে সহধর্মিনী বেগম ফজিলাতুন্নেছার অবদান অনেক। তিনি সব সময় তার পাশে থেকে সাহস ও শক্তি যুগিয়েছেন। নানাভাবে সহযোগিতা করেছেন। বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক ব্যস্ততা ও কারাজীবনে পরিবারের হাল ধরেছেন, ছেলেমেয়েদের দেখাশোনা, লেখাপড়ার সব দায়িত্বই নিজের হাতে তুলে নিয়েছেন। তার মতো ধীরস্থির, বুদ্ধিদীপ্ত, দূরদর্শী, স্বামী অন্তঃপ্রাণ নারী সাহসী, বলিষ্ঠ ভূমিকা শেখ মুজিবকে বঙ্গবন্ধু, এবং বঙ্গবন্ধু থেকে জাতির পিতা ও সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি হতে সহায়তা করেছেন। তার এ অবদানকে স্বীকৃতি দিতেই এবার তার জন্মদিনের একদিন আগে ছাত্রী সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংগঠনটি।

    এই আয়োজনের বিষয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন বলেন, শেখ মুজিবুর রহমান থেকে বঙ্গবন্ধু, আর বঙ্গবন্ধু থেকে জাতির পিতা হয়ে ওঠার পেছনে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছার অনেক অবদান রয়েছে। তার এ অবদানকে স্মরণ করেত এবার তার জন্মদিনের আগের দিন আমরা ছাত্রী সমাবেশ করবো। তিনি যেহেতু নারী তাই নারী সমাবেশ করবো আমরা।

    তিনি আরো বলেন, এ সমাবেশের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে এ প্রজন্মের মেয়েরা যেন উদ্ভব হয় রাজনীতি করতে। দেশের যে কোনো সমস্যায় নিজেদেরকে উৎসর্গ ও আত্মত্যাগ করতে পারে।

    বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’তেও সহধর্মিনীকে বাংলাদেশের রাজনীতিতে এক প্রেরণাদায়িনী মহীয়সি নারী বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেন, আমার বারবার কারারুদ্ধ জীবনে বেগম মুজিবকে গৃহ-সামগ্রী, অলঙ্কার বিক্রয় করতে হয়েছে সংসারের জন্য।

    তিনি আরো লেখেন, তিনি সঙ্গীতপ্রিয় ছিলেন। সংসারের জন্য পরিবারের অনেক জিনিস বিক্রি করলেও বাদ্যযন্ত্র আর গানের রের্কডগুলো কখনও হাতছাড়া করেননি।

    রাজনৈতিক জীবনের অনেক জটিল ও সঙ্কট সময়ে বঙ্গবন্ধুর পাশে থেকে পরামর্শ দিয়েছেন এবং সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সহযোগিতা করেছেন তিনি।

    আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা দায়ের করার পর তদানীন্তন পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবকে বেশ কয়েকবার জিজ্ঞাসাবাদ করে এবং গ্রেপ্তারের হুমকি দেয়।

    বঙ্গবন্ধু জীবনের শ্রেষ্ঠ সময় কারাগারেই কাটিয়েছেন। তার অবর্তমানে মামলা পরিচালনার ব্যবস্থা করা, দলকে সংগঠিত করতে সহায়তা করা, আন্দোলন পরিচালনায় পরামর্শ দেয়াসহ প্রতিটি কাজে যুক্ত থেকেছেন ফজিলাতুন্নেসা। আন্দোলন চলাকালে তিনি প্রতিটি ঘটনা জেলখানায় সাক্ষাৎকারের সময় বঙ্গবন্ধুকে জানাতেন এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও নির্দেশ নিয়ে আসতেন, আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগকে সে নির্দেশ জানাতেন। নেপথ্যে থেকে তিনি ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছিলেন। তিনি পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার চোখ এড়িয়ে সংগঠনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করতেন এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিতেন।

    ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার সময় পরিবারের অপরাপর সদস্যদের সঙ্গে বেগম মুজিবকেও নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়।

    ৮ আগস্ট বেগম ফজিলাতুন্নেছার জন্মদিন যথাযোগ্যভাবে উদযাপনের উদ্যোগ নিয়েছে আওয়ামী লীগও। এদিন সকাল ১০টায় বনানী কবরস্থানে বেগম ফজিলাতুন্নেছার কবরে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের পর কোরানখানি, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল আয়োজন করা হয়েছে।

    আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ আগামী ৮ আগস্ট বেগম মুজিবের জন্মবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় দেশবাসীকে সঙ্গে নিয়ে পালন করার জন্য আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের সব স্তরের নেতাকর্মী, সমর্থক, শুভান্যুধায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

    (Visited 2 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *