Templates by BIGtheme NET
Home / খেলাধুলা / ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে গো হারা হারলো ভারত – Songbad Protidin BD

ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে গো হারা হারলো ভারত – Songbad Protidin BD

  • ১৮-০৬-২০১৭
  • image-39267স্পোর্টস ডেস্ক: চ্যাম্পিয়ন ট্রফির ফাইনালে পাকিস্তানের ছুঁড়ে দেয়া ৩৩৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে সবকটি উইকেট হারিয়ে টেনেটুনে ১৫৮ রান তুলতে সমর্থ হয় কোহলি বাহিনী। আর তাই ১৮০ রানের বিরাট ব্যবধানে পাকিস্তানের কাছে হারলো ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ভারত।

    বাংলাদেশকে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট কেটেছিল উদ্ধত আচরণের টিম ইন্ডিয়া। প্রথমবারের মতো আইসিসির কোনো ওয়ানডে ইভেন্টের ফাইনালে মুখোমুখি লড়াইয়ে নামে ভারত-পাকিস্তান। বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে তিনটায় মুখোমুখি হয় দুই দল। টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ভারতের দলপতি বিরাট কোহলি। নির্ধারিত ৫০ ওভারে পাকিস্তান ৪ উইকেট হারিয়ে তোলে ৩৩৮ রান। জবাবে, ৩০.৩ ওভারে অলআউট হওয়ার আগে ভারত তোলে ১৫৮ রান।

    আগে ব্যাটিংয়ে নেমে পাকিস্তানের ওপেনার ফখর জামান ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম শতক হাঁকান। এছাড়া, হাফ-সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন আরেক ওপেনার আজহার আলি। দলকে দুর্দান্ত শুরু পাইয়ে দিয়ে রান আউট হয়ে ফেরেন আজহার আলি। ২৩তম ওভারের শেষ বলে রান আউটের শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন ওপেনার আজহার আলি। ৭১ বলে ছয়টি চার ও একটি ছক্কায় ৫৯ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন এ ডানহাতি। এর আগে ফখর জামানের সঙ্গে ১২৮ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েছিলেন তিনি।

    এরপর বিদায় নেন ওয়ানডেতে অভিষেক সেঞ্চুরি করা ফখর জামান (১১৪)। ইনিংসের ৩৪তম ওভারে হারদিক পান্ডের বলে জাদেজার তালুবন্দি হন এই ওপেনার। এর আগে বাবর আজমের সঙ্গে ৭২ রানের জুটি গড়েন তিনি। ১০৬ বলে সাজানো ফখরের ইনিংসে ছিল ১২টি চার আর তিনটি ছক্কা। দলীয় ২০০ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট হারায় পাকিস্তান। ইনিংসের ৪০তম ওভারে বিদায় নেন শোয়েব মালিক। ভুবনেশ্বর কুমারের বলে যাদবের তালুবন্দি হওয়ার আগে মালিকের ব্যাট থেকে আসে ১২ রান। চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন বাবর আজম। কেদার যাদবের বল তুলে মারতে গিয়ে যুবরাজের হাতে ধরা পড়েন ৪৬ রান করা বাবর। তার ৫২ বলের ইনিংসে ছিল চারটি বাউন্ডারির মার। দলীয় ২৬৭ রানের মাথায় চতুর্থ উইকেট হারায় পাকিস্তান।

    এরপর জুটি গড়েন মোহাম্মদ হাফিজ আর ইমাদ ওয়াসিম। এই জুটি থেকে স্কোরবোর্ডে ওঠে অবিচ্ছিন্ন ৭১ রান। হাফিজ ৩৭ বলে ৪টি চার আর ৩টি ছক্কায় করেন অপরাজিত ৫৭ রান। ইমাদ ওয়াসিমের ব্যাট থেকে আসে ২১ বলে অপরাজিত ২৫ রান।

    বুমরাহকে ফিরিয়ে দেন হাসান আলি। মোহাম্মদ আমির ও হাসান আলি তিনটি করে উইকেট তুলে নেন। দুটি উইকেট নেন শাদাব খান আর একটি উইকেট নেন জুনায়েদ খান।

    গ্রুপপর্বে এই ভারতের বিপক্ষেই বড় ব্যবধানে হেরেছিল পাকিস্তান। টিম ইন্ডিয়ার বিপক্ষে ডিএল মেথডে ১২৪ রানে হারের পর দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে দেয় পাকিস্তান। অঘোষিত কোয়ার্টার ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে হতাশ করে জয় ছিনিয়ে নেয় পাকিস্তান। এরপর সেমি ফাইনালে স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনালের টিকিট কাটে সরফরাজ আহমেদের দলটি। গ্রুপপর্বে পাকিস্তানকে হারালেও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হেরেছিল ভারত। পরের ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে না জিতলে ফাইনালে ওঠার পথ বন্ধ হয়ে যেত টিম ইন্ডিয়ার। প্রোটিয়াদের বিদায় করে সেমিতে ওঠে বাংলাদেশকে হারিয়ে পাকিস্তানকে ফাইনালের মঞ্চে প্রতিপক্ষ হিসেবে পায় বিরাট কোহিলর দল।

    পাকিস্তানের দেয়া ৩৩৯ রানের টার্গেটে ইনিংসের শুরুতে ব্যাট করতে নামেন ভারতের ওপেনার রোহিত শর্মা আর শিখর ধাওয়ান। প্রথম ওভারেই রোহিতকে এলবির ফাঁদে ফেলেন মোহাম্মদ আমির। তৃতীয় ওভারে ভারতের প্রাণভোমরা কোহলিকে মাঠছাড়া করেন। ব্যক্তিগত ৫ রান করে শাদাব খানের তালুবন্দী হয়ে ভারতের প্রাণভোমরা নিষ্প্রাণ হয়ে যায়।

    (Visited 12 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *