Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / ব্রেকিং নিউজ / নির্বাচনী বাজেট জনগণের কোনো কল্যাণে আসবে না: ফখরুল – Songbad Protidin BD

নির্বাচনী বাজেট জনগণের কোনো কল্যাণে আসবে না: ফখরুল – Songbad Protidin BD

  • ০১-০৬-২০১৭
  • Fakhrul20170601144914সংবাদ প্রতিদিন বিডি প্রতিবেদকঃ  নির্বাচন সামনে রেখে দেয়া বাজেট জনগণের কোনো কল্যাণে আসবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

    তিনি বলেন, “এ বাজেট জনকল্যাণে নয়, রাজনৈতিক স্বার্থে দেয়া হয়েছে।”

    এ বাজেট বাস্তবায়ন অসম্ভব বলেও মন্তব্য করনে তিনি।

    বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের উদ্যোগে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৬তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দুস্থ মহিলাদের মধ্যে বস্ত্র বিতরণের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ফখরুল এসব কথা বলেন।

    অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বেলা দেড়টায় জাতীয় সংসদে আগামী অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন শুরু করার দেড় ঘণ্টা আগে বিএনপির পক্ষ থেকে এরকম বক্তব্য আসে।

    মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘‘এই সরকার নির্বাচন সামনে রেখে রাজনৈতিকভাবে বাজেটকে ব্যবহার করছে। কোনো কোনো খাতে এই ব্যবহার হচ্ছে। স্বাস্থ্যখাতের অবস্থা ভালো নয়, শিক্ষাখাতের অবস্থা ভালো নয়। আমরা দেখতে চাই, ওইসব খাতে কীরকম বরাদ্দ হচ্ছে। এখন পর্যন্ত ওইসব খাতের অবস্থা ভালো নয়। সে কারণে আমরা মনে করি, এই বাজেটটি জনগণের কল্যাণে খুব একটা কিছু করতে পারবে না।”

    সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি উল্লেখ করে তাদের বাজেট উপস্থাপনার বৈধতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন বিএনপি মহাসচিব।

    তিনি বলেন, ‘‘স্বাভাবিক নিয়ম অনুযায়ী সরকারকে একটা বাজেট দিতে হয়। পার্থক্যটা এখানে যে এই সরকার নির্বাচিত সরকার নয়। এখানে সরকারের লেজিটেমিসির প্রশ্ন এসে যায়। সেকারণে সব সংকটের মূলে কিন্তু এই যে, এই সরকারের বৈধতা নেই। বাজেট যে তারা দিচ্ছে, সেটারও কোনো জবাবদিহিতা বা দায়বদ্ধতা তাদের নেই। সংসদে যে আলোচনাগুলো হবে, তাও জবাবদিহিতা ও দায়বদ্ধতার মাধ্যমে হবে না।”

    তিনি বলেন, “এই বাজেটের আলোচনা-সমালোচনা, জনগণের কল্যাণে কতটুকু হবে, সে বিষয়ে যথেষ্ট সন্দেহ সৃষ্টি হয়েছে। পত্র-পত্রিকায় আমরা দেখেছি, অর্থনীতিবিদরা, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানগুলো এই বাজেটের যে বিশাল একটা অবয়ব, যেটা এই সরকার বরাবরই বড় অবয়ব দিচ্ছে, বড় একটা বাজেট দিচ্ছে, সব সময় বলছে ইট ইজ হাইলি অ্যামবিশাস। এবার বলা হচ্ছে, ঝুঁকি নিয়ে দেয়া হচ্ছে। অর্থমন্ত্রী নিজেই বলেছেন, শেষ বাজেট ঝুঁকি নিয়ে দিচ্ছেন। ভালো কথা। যারা বাজেট দিচ্ছে, তাদের সেই বৈধতা আছে কিনা। বৈধতা নেই বলেই আজকে আর্থিক ক্ষেত্রে যত সংকট সৃষ্টি হচ্ছে।”

    অতীতের বাজেট বাস্তবায়নের পরিসংখ্যান তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘‘আপনারা লক্ষ্য করেছেন, ব্যাংকিং সিস্টেম, শেয়ার মার্কেট এবং এডিপির (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি) যে বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া, সেটাও কিন্তু চূড়ান্তভাবে হচ্ছে না। কয়েকদিন আগে আমরা পত্রিকায় দেখেছি, গতবছরের বাজেটের ৫৫ শতাংষ থেকে ৬০ শতাংশ এখন পর্যন্ত বাস্তবায়ন হয়নি। তাহলে এই বড় বাজেট দেয়ার ‍যুক্তিটা কী থাকতে পারে?”

    তিনি বলেন, ‘‘এই বাজেটের লক্ষ্যটা কী? লক্ষ্যটা যদি এমন হতো জনগণের কল্যাণের জন্য, তাদের আয় বৃদ্ধির জন্য তাহলে একটা কথা ছিল। আমরা দেখছি যে ভ্যাটের(মূল্য সংযোজনক কর) মধ্য দিয়ে সাধারণ মানুষের পকেট কেটে নেয়া হচ্ছে এবং অনুৎপাদক খাতে ব্যয় বেশি হচ্ছে। একই সঙ্গে পাওয়ার প্ল্যান্টের ক্ষেত্রে দুর্নীতি চরম পর্যায় চলে গেছে এবং কোনো জবাবদিহিতা নেই, কোনো টেন্ডার হয় না- এই বিষয়গুলো রয়েছে। সেজন্য আমরা মনে করি, আমাদের দেশের আর্থিক নিয়ন্ত্রণ বা আর্থিক ব্যবস্থাপনা যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হবে।”

    আগামী বাজেটেও বিশাল ঘাটতি থাকবে, সেক্ষেত্রে জনকল্যাণ কতটুকু সম্ভব হবে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘খুব কঠিন এটা। এটা শুধু কঠিন নয়, অসম্ভব ব্যাপার।”

    রাজধানীর নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচের তলায় মহিলা দলের উদ্যোগে দুস্থ মহিলাদের মধ্যে বস্ত্র বিতরণ করেন মির্জা ফখরুল। এসময় সংগঠনের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস, সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নুরে আরা সাফা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

    সংবাদ প্রতিদিন বিডি/ সালাউদ্দিন আহমেদ 

    (Visited 12 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *