Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / সর্বশেষ / নিমপাতার অজানা ৬ উপকারিতা

নিমপাতার অজানা ৬ উপকারিতা

  • ১৩-০৮-২০১৬
  • 3অনলাইন ডেস্ক: নিম গাছ পরিবেশের জন্য খুবই উপকারী। নিম গাছের প্রতিটা অংশ- শিকড়, বাকল, আঠা, পাতা, ফল, ডাল, বীজ এবং বীজের তেল ভেষজ ওষুধ হিসেবে ব্যবহার হয়। নিমে ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস, ছত্রাক, জ্বর ও বেদনানাশক এবং অ্যান্টি ডায়াবেটিক, রক্ত পরিষ্কারক ও স্পারমিসাইডাল উপাদান আছে। এসব ছাড়াও নিমের পাতায় লুকিয়ে আছে আরো কিছু ওষুধিগুন। যা রুপচর্চায় এবং স্বাস্থ্যর জন্য খুব উপকারী। চলুন জেনে নেয়া যাক নিমপাতার গুনাবলীগুলো।

    ১. ওজন কমাতে: যদি আপনি ওজন কমাতে চান বিশেষ করে পেটের তাহলে নিমের ফুলের জুস খেতে হবে আপনাকে। নিম ফুল মেটাবলিজম বৃদ্ধি করে শরীরের চর্বি ভাংতে সাহায্য করে।

    -একমুঠো নিম ফুল চূর্ণ করে নিন
    -এর সাথে এক চামুচ মধু এবং আধা চামুচ লেবুর রস দিয়ে ভালোভাবে মিশান।
    -প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এই মিশ্রণটি পান করুন।

    ২. খুশকির চিকিৎসায়: নিমের ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাক নাশক উপাদানের জন্য খুশকির চিকিৎসায় কার্যকরী ভূমিকা রাখে। নিম মাথার তালুর শুষ্কতা ও চুলকানি দূর করে।

    -চার কাপ পানিতে এক মুঠো নিমের পাতা দিয়ে গরম করতে হবে যতক্ষণ না পানিটা সবুজ বর্ণ ধারণ করে
    -এই পানি ঠান্ডা হলে চুল শ্যাম্পু করার পর এই পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। নিমের পানি কন্ডিশনারের মত কাজ করবে।
    -সপ্তাহে ২-৩বার ব্যবহার করুন যতদিন না খুশকি দূর হয়।

    ৩. ছত্রাকের ইনফেকশন দুর করতে: যদি আপনার পায়ে কোন ফাঙ্গাল ইনফেকশন থাকে নিম ব্যবহার করুন। নিমে নিম্বিডল এবং জেডুনিন আছে যা ফাঙ্গাস ধ্বংস করতে পারে। নিম পাতার পেস্ট বানিয়ে আক্রান্ত স্থানে লাগালে নিরাময় লাভ করা যায়। আক্রান্ত স্থানে কয়েক ফোঁটা নিমের তেল দিনে তিনবার লাগালেও ভালো ফল পাওয়া যায়।

    ৪. রক্তের সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণে: নিম ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে চমৎকারভাবে কাজ করে। নিমের পাতা রক্তের সুগার লেভেল কমতে সাহায্য করে। এছাড়াও রক্তনালীকে প্রসারিত করে রক্ত সংবহন উন্নত করে। ভালো ফল পেতে নিমের কচি পাতার রস প্রতিদিন সকালে খালি পেটে পান করুন।

    ৫. ত্বকের সমস্যা দূর করতে: ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা যেমন- ব্রণ, এক্সিমা ও সোরিয়াসিস এর সমস্যা দূর করতে পারে নিম।

    ৬. উকুনের চিকিৎসায়: নিমের ব্যবহারে উকুনের সমস্যা দূর হয়। নিমের পেস্ট তৈরি করে মাথার তালুতে ম্যাসাজ করুন, তারপর মাথা শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন এবং উকুনের চিরুনি দিয়ে মাথা আঁচড়ান। সপ্তাহে ২-৩ বার এটা করুন। ২ মাস এভাবে করুন। উকুন দূর হবে।

    এরকম আরো নানাবিধ স্বাস্থ্য সমস্যার সমাধানে যেমন- মুখের অতিরিক্ত তেল দূর করে, ব্রণ ও ব্ল্যাক হেডস দূর করে, মাড়ি ও দাঁতের রোগ দূর করে, হেপাটাইটিসের নিরাময়কে ত্বরান্বিত করে, মশার কামড় থেকে রক্ষা করে এবং ক্যান্সারের চিকিৎসায় নিম কার্যকরি ভূমিকা রাখে নিম পাতা।

    সংবাদ প্রতিদিন বিডি/ পা খা

    (Visited 33 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *