Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / আন্তর্জাতিক / নব রেনেসাঁর ডাক দিলেন ম্যাক্রন – Songbad Protidin BD

নব রেনেসাঁর ডাক দিলেন ম্যাক্রন – Songbad Protidin BD

  • ১৪-০৫-২০১৭
  • image-34201আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ফ্রান্সের নতুন প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রন তার দেশে নব রেনেসাঁর ডাক দিয়েছেন। ফরাসিদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে তিনি বলেছেন, ফ্রান্সের বৈশ্বিক অবস্থান পুনঃপ্রতিষ্ঠা করবেন তিনি।

    স্থানীয় সময় রবিবার প্রেসিডেন্ট ভবন এলিসি প্রাসাদে শপথের পর প্রথম ভাষণে ফরাসি জাতির নবজাগরণের অঙ্গীকার করেন ৩৯ বছর বয়সী ম্যাক্রন।

    তার পাঁচ বছরের মেয়াদে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সংস্কার ও নতুন রূপ দেখতে চান ম্যাক্রন। নির্বাচনে তিনি ইইউপন্থি ছিলেন এবং ফ্রান্সের সঙ্গে ইইউর সম্পর্ক আরো দৃঢ় করার ঘোষণা দেন।

    বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদের পাঁচ বছরের শাসনামল শেষ হয় ম্যাক্রনর শপথের মধ্য দিয়ে। তবে ওলাঁদের পাঁচ বছর নানা সংকটে ছিল ফ্রান্স এবং বেকারত্বের উচ্চহারে দিশেহারা হয়ে পড়ে দেশটি।

    বিগত সপ্তাহে দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে উগ্র ডানপন্থি ন্যাশনাল ফ্রান্টের (এনএফ) প্রার্থী মারি লি পেনকে হারিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন ম্যাক্রন। তিনি প্রায় ৬৬ শতাংশ ভোট পান।

    প্রাক্তন ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকার ম্যাক্রন এর আগে কখনো কোনো নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি। মাত্র এক বছর আগে তিনি রাজনৈতিক সংগঠন দাঁড় করান। এত অল্প সময়ে ফরাসিদের মতো সচেতন ভোটারদের মন জয় করে প্রেসিডেন্ট হওয়া সত্যিই বিস্ময়ের।

    রবিবার ম্যাক্রনর শপথ অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে প্যারিসে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। অতিরিক্ত কয়েক শ’ পুলিশ টহলে নামে। অভিষেক অনুষ্ঠানে ম্যাক্রনর সঙ্গে ছিলেন নতুন ফার্স্ট লেডি ব্রিজিৎ ম্যাক্রন ও তার পরিবারের সদস্যরা।

    অভিষেক ভাষণে ম্যাক্রন বলেন, সমাজের বিভক্তি ও ক্ষত অবশ্যই দূর করা হবে। বিশ্বে ইউরোপের ফ্রান্সকে চিরদিন দরকার হবে। একটি শক্তিশালী ফ্রান্স প্রতিষ্ঠিত হবে- যা স্বাধীনতা ও ঐক্যের বিষয়ে সর্বদা উচ্চকণ্ঠে কথা বলবে।

    উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে প্যারিস হামলার পর ফ্রান্সে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়, যা এখনো বহাল রয়েছে। সূত্র: রয়টার্স ও বিবিসি।

    (Visited 5 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *