Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / অন্যান্য / ‘তোরে জজ বানাইছে কেডা’ যারা বলে, তাদের হাতে বিচারক অপসারণ ক্ষমতা?

‘তোরে জজ বানাইছে কেডা’ যারা বলে, তাদের হাতে বিচারক অপসারণ ক্ষমতা?

  • ২৫-০৫-২০১৭
  • imranসংবাদ প্রতিদিন বিডি ডেস্কঃ  বিচারপতিদের অপসারণে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল না থাকলে অরাজকতা হবে বলে মত দিয়েছেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ। ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল শুনানিতে অ্যামিকাস কিউরি হিসেবে তিনি এ মত দেন। ওই সংশোধনীতে বিচারপতিদের অপসারণ ক্ষমতা জাতীয় সংসদের হাতে ন্যস্ত করা হয়।

    বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে সাত বিচারপতির পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

    শুনানিতে রোকন উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘তোরে জজ বানাইছে কেডা’ পত্রিকায় এ রকম দেখেছি। যারা সংসদে দাঁড়িয়ে এ রকম কথা বলে তাদের হাতে এটা (বিচারকদের অপসারণের ক্ষমতা) ছেড়ে দেবেন? তখন জুডিশিয়ারির স্বাধীনতা থাকবে?

    তিনি বলেন, সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল না থাকলে এখানে অরাজকতা হবে। আর এটা (ষোড়শ সংশোধনী) যদি হয়ে যায় তাহলে হাইকোর্টের জজদের তো আপনি (প্রধান বিচারপতি) কিছু বলতে পারবেন না। উনারা যদি ১১টায় আসে তখনও কিছুই বলতে পারবেন না। অথবা খাস কামরায় কোনো ব্যক্তির সঙ্গে যখন কথা বলবে, তখন সংসদ কি দেখবে? এটা সংসদ জানবেও না। তাদেরকে কে জানাবে।

    সংসদে বিচারপতিদের নিয়ে আলোচনার বিষয়ে তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্টের জজ নিয়ে সংসদে আলোচনার সুযোগ নেই। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞা সত্বেও সদস্যরা আলোচনা করেছে। কিন্তু স্পিকার টু শব্দ করেনি।

    তিনি বলেন, সবচেয়ে ক্লাসে হচ্ছেন আপনারা। শিক্ষা দীক্ষায় সম্মানে আপনারা ক্লাসে। আপনাদের সম্মান থাকবে না? বিচার বিভাগের স্বাধীনতা থাকবে না? তারা (সাংসদরা) আপনাদের নিয়ে এ রকম মন্তব্য করে।

    তিনি আরও বলেন, সিভিল সার্ভিসের ব্যক্তিদের কারা অপসারণ করে? পুলিশের কারা করে? সেক্রেটারিদের কারা করে। আপনি? সংসদ? কেউ না। তাদের উপরিস্তররা অপসারণ করে। অর্থাৎ সহকারী সচিবদের তদন্ত করে যুগ্ম সচিবরা। পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। মিলিটারিদেরটা তাদের ডিসিপ্লিনারিতে আছে। তাহলে আপনাদেরটা কেন পার্লামেন্টে যাবে। সচিব, পুলিশ এটা তো সংসদে যাচ্ছে না। তাহলে এটা কেন?

    সংবাদ প্রতিদিন বিডি/ ডেস্ক 

    (Visited 17 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *