Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / Slide Show / ক্লিনটন কেলেঙ্কারির নায়িকা মনিকার খবর কি?

ক্লিনটন কেলেঙ্কারির নায়িকা মনিকার খবর কি?

  • ২৭-০৫-২০১৬
  • বেশিরভাগ মার্কিনীর কাছেই মনিকা লুইনসকি নামটি পরিচিত। সংবাদ সূত্রে বিশ্ববাসীর কাছেও নামটা অপরিচিত নয়। এমনকি ১৯৯০ সালের গোঁড়ার দিকে যখন মনিকার নাম রাজনৈতিক অঙ্গন হতে দাবানলের মত ছড়িয়ে পড়ে সবখানে, তখন সেই সময়ে যাদের জন্ম পর্যন্ত হয়নি তারাও পরবর্তীতে নামটির সাথে পরিচিত হয়েছে। কেলেঙ্কারির কথা সবাই জানতে চায়। মনিকা লুইনসকিকে বাকি জীবন মানুষ এমন একজন নারী হিসেবে দেখবেন, যিনি কিনা নব্বইয়ের দশকের সবচেয়ে জনপ্রিয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনকে যৌন কেলেংকারির দায়ে প্রায় ধরাশায়ী করে ফেলেছিলেন।

    মার্কিন প্রেসিডেন্টের যৌন কেলেঙ্কারির খবর পত্রিকার হেডলাইনে আসবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু কতদিন? ঘটনার পরে ক্লিনটনের অভিশংসন প্রক্রিয়া কিংবা লুইনসকির অনিচ্ছাকৃত কুখ্যাতি কোনটাই বেশিদিন পত্রিকার পাতায় থাকিনা। নতুন কোন কেলেংকারিরি খবর এসেছে। মানুষ তাই নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। কিন্তু তারপরও জানতে ইচ্ছা করে কেমন আছেন সেই মনিকা লুইনসকি?

    অনেকেই হয়তো জানেন না লুইনসকি ১৯৯৯ সালে স্টাইলিশ একটি হ্যান্ডব্যাগ চালু করেছিলেন বাজারে। ঐ সময়ে নিজের সৃষ্টিশীলতা প্রকাশের জন্য একটা উপায় তার দরকার ছিল। অনলাইন বিকিকিনি ওয়েবসাইট ই-বে’তে খোঁজ করলে এখনো হয়তো পাওয়া যাবে ঐ ব্যাগের দুয়েকটা। যদিও ২০০৪ সালে বন্ধ হয়ে যায় ব্যাগের উৎপাদন।

    সাবেক এই হোয়াইট হাউজ শিক্ষানবিশ এবং ডিজাইনার লুইনসকির আরও অনেক ধরনের প্রতিভা রয়েছে। তিনি একজন লেখিকা এবং ভ্যানিটি ফেয়ারের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিষয়ে লেখালেখি করেন। বিভিন্ন ইস্যুতে তার লেখা প্রবন্ধগুলোতে মৌলিক দৃষ্টিভঙ্গির ছাপ পাওয়া যাবে।

    ভ্যানিটি ফেয়ারের জন্য লেখা একটি প্রবন্ধে লুইনসকি সমাজের তর্জন-গর্জনকারী কুচক্রী লোকের বিরুদ্ধে একরকম যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। তার নিজের জীবনের অভিজ্ঞতায় তিনি এই জাতীয় মানুষের কটু ও আক্রমণাত্মক কথার শিকার হয়েছেন বহুবার।

    তবে এই যুদ্ধ ঘোষণায় তার অনুপ্রেরনা ছিল রুটগার বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সমকামী ছাত্র, যে কিনা সহপাঠীদের আক্রমণের শিকার হয়ে লজ্জায় ঘৃণায় আত্মহত্যা করে। এরপর থেকেই লুইনসকি প্রকাশ্যে মানুষকে লজ্জা দেয়া কিংবা কটু অশ্লীল কথা বলে আক্রমণকারী মানুষের বিরুদ্ধে উঠে পড়ে লাগেন।

    লুইনসকি আরেকটি পরিচয় হচ্ছে তিনি একজন রাষ্ট্রদূত। তবে সাধারণ কোন রাজনৈতিক রাষ্ট্রদূত নন। তিনি বাই স্ট্যান্ডার রেভ্যুলুশান নামের একটি দলের রাষ্ট্রদূত। দলটি মূলত হয়রানি ও লোকলজ্জার শিকার মানুষদের পরামর্শ দিয়ে থাকে। ইতিবাচক বার্তা এবং উপদেশ দিয়ে আক্রান্ত মানুষকে সহায়তা করে।

    সিএনএন জানিয়েছে, মনিকা নিজেকে হয়রানি ও লোকলজ্জার শিকার একজন মানুষ বলে বিবেচনা করে। কারণ ক্লিনটন কেলেঙ্কারি তার জীবনকে আজীবনের জন্য বদলে দিয়েছে। কিন্তু সেই কষ্ট কাটিয়ে ওঠার জন্য মনিকা নিজেকে গৃহবন্দী করে রাখে নি বরং পাবলিক বক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

    তিনি প্রকাশ্যে বক্তৃতা দিতে পছন্দ করেন এবং বান্ধবীদের নিয়ে হই হুল্লোড় করতে পছন্দ করেন। ৪২ বছর বয়স্ক মনিকা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারেও তিনি খুবই তৎপর।

    ক্লিনটন কেলেংকারির পর মানুষের কাছে তার যে চিত্র প্রকাশ পেয়েছে তাতে মনিকা অসহায় শিকার হিসেবে নয়, বরং ধূর্ত শিকারি হিসেবেই পরিচিত হয়েছেন। যেন প্রেসিডেন্ট ক্লিনটনকে বিপদে ফেলতেই তার ছলাকলামূলক উদ্দেশ্য ছিল। কিন্তু এই কেলেঙ্কারিতে তার জীবন প্রায় দুর্বিষহ হয়ে গিয়েছিল।

    নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, কিন্তু এতো কিছুর পরও তিনি ইংল্যান্ডের বিখ্যাত লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিকস থেকে মাস্টার ডিগ্রি অর্জন করেন। লুইনসকি নিজের জেন অংশের (জেন হচ্ছে বৌদ্ধ ধর্মের ধ্যানরত ও সহজাত অন্তর্দৃষ্টির উপর মনঃস্থির করার একটি রূপ) সাথেও যোগাযোগ বাড়িয়েছেন। তিনি বেশি করে ধ্যান এবং মানসিক থেরাপি নেয়া শুরু করেন। যে মানসিক চাপ, লজ্জা ও উত্তেজনার মধ্যে তিনি পড়েছিলেন, সেখান থেকে বেরিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে তাকে সাহায্য করেছে এই চর্চা।

    মনিকার জীবনে যেটা ঘটেছে সেটা হয়তো সবার জীবনে ঘটে না। তিনি এখন অনেকটাই স্বাভাবিক, কিন্তু ক্লিনটন কেলেঙ্কারির রেশ তার মনে এবং মানুষের মনে এখনো রয়ে গেছে।

    ২০১৫ সালে জনপ্রিয় মার্কিন টেলিভিশন শো ‘গুড মর্নিং আমেরিকা’তে অতিথি হিসেবে উপস্থিত হওয়ার পর তাকে সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের স্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হয়। তিনি কৌশলে ব্যাপারটা এড়িয়ে যান। কোন ধরনের হঠকারী মন্তব্য না করে মনিকা বলেন, ‘এটা খুবই ভালো যে রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট উভয় দল থেকেই নারীরা প্রেসিডেন্ট পদের জন্য লড়ছেন।’ তবে ঐ পর্যন্তই। ক্লিনটনের ব্যাপারে তিনি আর মুখ খোলেন নি।

    (Visited 4 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *