Templates by BIGtheme NET
শিরোনামঃ
Home / Slide Show / ইলিয়াস আলীর হাতেই থাকছে সিলেট বিএনপি!

ইলিয়াস আলীর হাতেই থাকছে সিলেট বিএনপি!

  • ১০-০৪-২০১৬
  • বিএনপির আট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মনোনীত হলেও ঘোষিত হয়নি সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের নাম। এ পদে কারো নাম ঘোষণা করা হবে কি না, সে বিষয়টিও পরিষ্কার নয় এখনো।

    জানা গেছে, বর্তমানে দায়িত্বরত ‘নিখোঁজ’ ইলিয়াস আলীই থাকছেন বিএনপির সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের পদে।

    ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাজধানীর বনানী থেকে গাড়িচালক আনসার আলীসহ অপহৃত হন বিএনপির সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী। পরে রাস্তায় পড়ে থাকা তার গাড়ি উদ্ধার করে বনানী থানা পুলিশ। অপহরণের পর থেকেই পরিবার ও বিএনপির পক্ষ থেকে ইলিয়াস আলীকে খুঁজে বের করার দাবি জানানো হচ্ছে। কিন্তু এতোদিনেও তার কোনো সন্ধান দিতে পারেনি সরকার।

    তিনি জীবিত আছেন, না মারা গেছেন- এ ব্যাপারেও সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য দিচ্ছে না আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। আগামী ১৭ এপ্রিল ইলিয়াস আলীর অপহরণের চার বছর পূর্ণ হবে।

    সূত্র মতে, বিএনপির হাইকমান্ড মনে করছে, এমন প্রেক্ষাপটে সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক পদে নতুন কাউকে মনোনীত করা ঠিক হবে না। তাহলে সবাই ধরে নেবে, ইলিয়াস আলীর ব্যাপারে বিএনপি তার অবস্থান পরিষ্কার করে ফেলেছে। অর্থাৎ বিএনপি ধরেই নিয়েছে, ইলিয়াস আলী আর কখনোই ফিরে আসবেন না। তিনি আর বেঁচে নেই। জনমনে এমন ধারণা তৈরির ঝুঁকিটা নিতে চাচ্ছে না বিএনপি।

    তবে তার মানে এই নয় যে, সিলেট নেতৃত্বহীন ছিল এবং সেরকমই থেকে যাবে। এই চার বছরে সেরকমটি হয়নি। নিখোঁজ হওয়ার দুই বছরের মাথায় ইলিয়াস আলীর নেতৃত্বাধীন সিলেট জেলা কমিটি ভেঙে আহ্বায়ক কমিটি করা হয়। তাতে ইলিয়াসের স্ত্রী তাহসিনা রুশদী লীনাকে সদস্য করা হয়। ইলিয়াস আলীকে সভাপতি করে ২০০৯ সালের ২৫ নভেম্বর গঠিত হয়েছিল বিএনপির সিলেট জেলা কমিটি।

    শুধু তা-ই নয়, ইলিয়াস আলীর পক্ষের জনঅনুভূতি সবসময়ই লীনা রুশদীর পক্ষে গেছে। ফলে তিনি সিলেটে অঘোষিতভাবে যেন বিএনপির নেতৃত্বে চলে এসেছে। তাছাড়া আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে লীনার সুপারিশকৃত প্রার্থীই ধানের শীষ প্রতীকে লড়তে যাচ্ছেন। এর আগের স্থানীয় নির্বাচনেও তার প্রচ্ছন্ন হাত ছিল।

    বিএনপির মহাসচিব, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ও কোষাধ্যক্ষের পর শনিবার বিকেলে দলের যুগ্ম মহাসচিব পদে ৭ জন ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ৮ জনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে।

    রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী দলের পক্ষে তাদের নাম ঘোষণা করেন। এই ১৫টি গুরুত্বপূর্ণ পদের মধ্যে ১২টিতেই এসেছে নতুন মুখ।

    যুগ্ম মহাসচিব পদে মনোনীতরা হলেন- ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, মজিবুর রহমান সরোয়ার, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, হারুনুর রশিদ ও শাহ লায়ন আসলাম চৌধুরী।

    সাংগঠনিক সম্পাদক হলেন- ঢাকা বিভাগে ফজলুল হক মিলন, চট্টগ্রামে ডা. শাহাদাত হোসেন, খুলনায় নজরুল ইসলাম মঞ্জু, রাজশাহীতে অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, বরিশালে বিলকিস শিরিন, রংপুরে আসাদুল হাবিব দুলু, ময়মনসিংহে ইমরান সালেহ প্রিন্স ও ফরিদপুরে শামা ওবায়েদ।

    সিলেটের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘আজ আট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। পরে (সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের নাম) ঘোষণা করা হতে পারে।’

    ইলিয়াস আলীকেই বহাল রাখা হচ্ছে কি না, এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমি কিছু জানি না।’

    বিএনপি অন্য নেতারা গয়েশ্বরের মতোই এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে নারাজ।

    (Visited 7 times, 1 visits today)

    আরও সংবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    *